কালীগঞ্জে ৩ লাখ টাকার চাঁদার দাবিতে শিশু অহপরণ ॥ মোবাইল ট্রাকিং করে উদ্ধার ॥ অপহরণকারী আটক

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের বগেরগাছী গ্রাম থেকে আত্মীয় পরিচয়ে রিয়াদ হোসেন (৯) নামে এক শিশুকে অপহরণ করা হয়েছে। অপহরণের পর তার পরিবারের কাছে তিন লাখ টাকার চাঁদা দাবি করা হয়।
অপহৃত শিশু রিয়াদ উপজেলার বগেরগাছী গ্রামের ফারুক হোসেনের ছেলে এবং বগেরগাছি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্র। গত ২৫ মে সকালে একই এলাকার শুকুর আলীর ছেলে তাইজুল ইসলাম ওরফে স্বপন ওরফে মুন্না নামের এক যুবক ওই শিশুকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

কালীগঞ্জ থানা পুলিশ জানায়, বগেরগাছী গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে তাইজুল ইসলাম ওরফে স্বপন ওরফে মুন্না দীর্ঘদিন গ্রাম ছেড়ে ঢাকার কেরানীগঞ্জে বসবাস করছিল। গত শুক্রবার (২৪ মে) সে গ্রামে এসে আত্মীয়তার সূত্র ধরে শিশু রিয়াদদের বাড়িতে রাত্রিযাপন করে।
পরের দিন শনিবার (২৫ মে) সকালে নাস্তা আনতে অপহরণকারী মুন্না শিশু রিয়াদকে নিয়ে স্থানীয় বাজারে যায়। এরপর থেকেই মুন্না ও রিয়াদ নিখোঁজ হয়। পরে অপহরণকারী মুন্না রিয়াদের পরিবারের কাছে তিন লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

পরবর্তীতে তারা সন্ধান না পেয়ে কালীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে। ডায়েরির সূত্র ধরে আর শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য তদন্তে নামেন থানায় এসআই দেলোয়ার হোসেন। তিনি মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে সোমবার (২৭ মে) বিকেলে শিশুটিকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেন।

সে সময় আটক করা হয় অপহরণকারী মুন্নাকে। কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুচ আলী বলেন, মোবাইল ট্রাকিং করে শিশু রিয়াদকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সে সময় অপহরণকারী মুন্নাকে আটক করা হয়। তাদের দু’জনকেই এসপি অফিসে নিয়ে এসেছি। বিস্তারিত পরে বলতে পারবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here