হুজুগে বাঙ্গালী দেখেন তার কান্ড

সুলতান আল একরাম,ঝিনাইদহ সদরঃ
মানুষ যে কত আজগুবি গল্প বানিয়ে ছড়াতে পারে তা চোখে না দেখলে বিশ্বাস হতো না। এতোটাই তারা মিথ্যাকে আঁকড়ে ধরে আছে যে তাদের কাছে যুক্তি আর আধুনিক বিজ্ঞান ব্যার্থ । রাত তখন ৭টা। ব্যাপারীপাড়ায় একজন আমার ফোন করে বল্ল, আম গাছে গোলাপ ধরেছে দেখবা নাকি ? আমি ইয়ারকি ভেবে কাজে মনোযোগি হলাম। সে দেখি অফিস পর্যন্ত চলে এসেছে, তারপরে বের হয়ে স্পষ্টে গেলাম, আমাকে দেখেই সবাই সমস্বরে বলে উঠলো এই দ্যাখ সাংবাদিক এসেছে। এবার সারা বিশ্বে ছড়িয়ে যাবে। ব্যাপারীপাড়ার জোড়া পুকুরের পুর্ব পাড়ে খলিলুর রহমান ও রেজাউল ইসলামের বাড়ি। দুই বাড়ির মাঝখানে এক ফুট জায়গাও নেই। এই চিপা গলিতে বেশ কয়েকটি আমগাছ। এর মধ্যে গোড়ায় পাতা আর উপরে পাতাহীন দুইটি কান্ড আছে একটি গাছে। সেই কান্ডে ফুটে আছে গোলাপের মতো দেখতে দুইটি ফুল। রাত বৃদ্ধির সাথে সাথে ভীড় বাড়তে থাকে দর্শনার্থীদের। শত শত মানুষ। মানুষের ভীড় ঠেলে এখন স্পটে যাওয়ায় কষ্ট। তারপরও গেলাম দ্বিতীয় বার। খুব খেয়াল করলে বোঝা যাচ্ছে ফুল দুইটি আঠা দিয়ে লাগানো। এখন সেটি শুকিয়ে যাচ্ছে। এই গাছেই নাকি সকালে আম, দুপুরে কাঠাল ধরেছিল। পোষ্টটি দেওয়ার ইচ্ছা ছিল না।কিন্তু হুজুগে মানুষকে সজাগ করার জন্যই দেওয়া। আশা করি আম গাছে গোলাপ ধরার কথাটি কেও বিশ্বাস করবেন না। কারণ এটি হয় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here