৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগে বৃদ্ধ গ্রেপ্তার

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় ১১ বছরের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ওহাব হাওলাদার নামে (৬৭) এক বৃদ্ধকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে ওহাব হাওলাদারকে শাঁখাড়িকাঠি এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। গত শুক্রবার সকালে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত ওহাব হাওলাদার উপজেলার শাঁখাড়িকাঠি গ্রামের মৃত লাল মিয়া হাওলাদারের পুত্র এবং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। এর আগে তিনি সরোজনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ছিলেন।

ধর্ষণ চেষ্টার শিকার ওই ছাত্রীর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে ওহাবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান মঠবাড়িয়া থানার এসআই আসাদুজ্জামান – ২।

তিনি বলেন,২৩ জুন (বৃহস্পতিবার) বেলা আড়াইটার দিকে শাখাড়িকাঠি এলাকায় ধর্ষণ চেষ্টার এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা গেছে, ঘটনার দিন দুপুরের দিকে ওই ছাত্রী ওহাবের দোকান থেকে একটি কোমল পানীয় টাইগার কিনে মাঠ থেকে ছাগল আনতে যায়। ছাগল আনার সময় অর্ধেক পরিমান পানীয় পান করে বাকি অর্ধেক পরিমান কোমল পানীয়সহ প্রতিবেশী রাজ্জাকের বাসায় যায় এবং টাইগার বোতলটি রাজ্জাকের স্ত্রীকে দিয়ে তাকেও পান করতে বলে।

এরপর কান্নাকাটি করলে রাজ্জাকের পরিবারের সদস্যরা ধর্ষন চেষ্টার ঘটনা জানতে পারে এবং ওই ছাত্রীর বাবাকে ওইদিন সন্ধ্যায় খবর দেয়।এরপর সে রাজ্জাকের বাড়িতে এসে ঘটনা জানতে পেরে ওই দিনই মঠবাড়িয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়।

ওই ছাত্রীর বাবা জানায়,ব্যবসায়ী ওহাব হাওলাদার আমার মেয়েকে ধর্ষণ চেষ্টা করেছে। আমি এর বিচার চাই। ওহাব হাওলাদারের পরিবারের সদস্যরা জানান,প্রতিবেশী রাজ্জাক গংদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে আমাদের বিরোধ চলে আসছে। টাইগার খাওয়ার পর মাঠ থেকে ওই মেয়েটি ছাগল আনে।রাজ্জাকের বাড়িতে যাওয়ার পর হতে টাইগার বোতল দেখে এ ঘটনা রটানো হয়।

বার্তাবাজার/এম.এম

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.