সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় মাহমুদা আক্তার (৪) নামের এক শিশুকে কাঁচি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে শিশুটির মা নাজমা বেগম।

বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার পুটিজানা ইউনিয়নের দাওসাও এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মা নাজমা বেগমকে (৪০) আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গত ৫ বছর আগে পার্শবর্তী মুক্তাগাছা উপজেলার দাওগাঁও ইউনিয়নের বালিয়া গ্রামের রমজান আলীর সাথে বিয়ে হয় ফুলবাড়ীয়া উপজেলার দাওসা গ্রামের হযরত ফকিরের মেয়ে নাজমা বেগমের। বিয়ের পর থেকে নাজমার স্বামী মাদক ও জুয়া খেলায় আসক্ত হয়। পরে ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় বাবার বাড়ি চলে যায় নাজমা। তারপর থেকে বাবার বাড়িতেই থাকতো।

বৃহস্পতিবার শিশু মাহমুদা পাশের বাড়ির উঠানে খেলা করছিলো। এ সময় হঠাতই তাকে মাটিতে ফেলে কাঁচি দিয়ে গলা কাটে মা নাজমা। শিশুটি চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই সে মারা যায়। পরে ঘাতক নাজমাকে আটক করে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা।

ফুলবাড়ীয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন জানান, ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনায় শিশুর মা নাজমা বেগমকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে আটক নাজমা নিজেই শিশুটিকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। তবে কি কারণে এই হত্যাকাণ্ড, সে বিষয়ে জানতে তাকে আরও ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বার্তাবাজার/জে আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.