৩৫ বছরের সংসার ভাঙলেন শোয়ার্জনেগার

‘দ্য টার্মিনেটর’ খ্যাত হলিউডের কিংবদন্তী অভিনেতা আর্নল্ড শোয়ার্জনেগার ৩৫ বছরের বৈবাহিক সম্পর্কে ইতি টানার ঘোষণা দিয়েছেন। প্রায় ১০ বছর ধরে স্ত্রী সাহিত্যিক মারিয়া শ্রিভার আলাদা থাকার পর অবশেষে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘোষণা করলেন তিনি। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ইউএসএ টুডে।

শোয়ার্জনেগার ও মারিয়ার বিয়ে ১৯৮৬ সালে। তাদের প্রথম দেখা হয় ১৯৭৭ সালে একটি টেনিসের ইভেন্টে। এরপর ৯ বছর প্রেম করেন তারা। ১৯৮৯ থেকে ১৯৯৭ সালের মধ্যে তাদের ৪ সন্তান ক্যাথারিন শোয়ার্জনেগার, ক্রিস্টিনা শোয়ার্জনেগার, প্যাট্রিক শোয়ার্জনেগার ও ক্রিস্টোফার শোয়ার্জনেগারের জন্ম হয়।

এরপর ২০০৩ থেকে ২০১১ পর্যন্ত যখন দুইবার ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শোয়ার্জনেগার। সেই সময়ও তার সঙ্গে মারিয়া শ্রিভারের সম্পর্ক ভালোই ছিল। কিন্তু প্রকাশ্যে শোয়ার্জনেগারের বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কের কথা স্বীকার করে নেয়ার পরেই স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কে চিড় ধরে।

২০১১ সালের মে মাসে জানা যায়, আর্নল্ড শোয়ার্জনেগারের সঙ্গে ১৯৯৭ সালে তাদের বাড়ির পরিচারিকা মাইলড্রেড প্যাটি বাইনার বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই নারীর সাথে এই অভিনেতার একটি সন্তানও আছে। যার নাম জোশেফ বাইনা। এরপর থেকেই আলাদা থাকতে শুরু করেন মারিয়া শ্রিভার।

আলাদা থাকা শুরু করার সময় এক বিবৃতিতে নিজের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা স্বীকার করে নিয়ে শোয়ার্জনেগার জানিয়েছিলেন, আমার বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের লোকজনের রাগ, হতাশা বুঝতে পারছি। আমার কোনো সাফাই বা অজুহাতই দেওয়ার নেই। আমি সবাইকে যে আঘাত করেছি, তার সব দায়ই নিচ্ছি। আমি মারিয়া, সন্তানদের কাছে এবং পরিবারের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছি। আমি সত্যিই দুঃখিত।

এরপর মারিয়া শ্রিভার এক বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, এটা আমার কাছে হৃদয়বিদারক ও কষ্টের মুহূর্ত। একজন মা হিসেবে আমি সন্তানদের কথা ভেবে উদ্বিগ্ন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.