২ শিশুর শরীরে আগুন দেওয়ার কারণ জানালো পুলিশ

রাজধানীর আদাবরে ছোট্ট শালা শালীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগানোর কারণ খুঁজে পেয়েছে পুলিশ। দ্বিতীয় স্ত্রী মৌকে শিক্ষা দিতেই তার ছোট্ট দুই ভাই-বোনকে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিলো দুলাভাই আলাউদ্দিন।

বুধবার (১৬ মার্চ) সন্ধ্যায় ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিসি বিপ্লব কুমার সরকার। এর আগে আজ দুপুরে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে সাভারের বৈলাপুর এলাকা থেকে অভিযুক্ত আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে ডিসি বিপ্লব জানান, দ্বিতীয় স্ত্রীকে শিক্ষা দিতেই এ কাণ্ড ঘটিয়েছে পেশায় রিকশাচালক আলাউদ্দিন। দুই বউ নিয়ে পাশাপাশি বাড়িতে থাকেন আলাউদ্দিন। গার্মেন্টসে চাকরি করেন তারা দু’জনেই। দ্বিতীয় স্ত্রী মৌয়ের সাথে অন্য কারো অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ আলাউদ্দিনের। এ নিয়ে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয় এবং আলাউদ্দিন তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে মারধর করেন।

তিনি আরও জানান, স্ত্রী মৌয়ের ওপর প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য গতকাল মঙ্গলবার আদাবর এলাকার শ্বশুরবাড়ি থেকে ছোট দুই শালা-শালিকে প্রথম স্ত্রীর বাসায় নিয়ে যান আলাউদ্দিন। এসময় শিশু দুটিকে গালাগাল ও মারপিট করেন তিনি। একপর্যায়ে শিশুদের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে দেন আলাউদ্দিন।

ওই সময়ে শিশু দু’টির চিৎকারে স্থানীয়রা গিয়ে তাদের উদ্ধার করে প্রথমে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যান। পরে সেখান থেকে আবার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যান।

এ ঘটনায় দগ্ধ শিশুদের বোন আদাবর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে আজ দুপুরে সাভারের বৈলাপুর এলাকা থেকে অভিযুক্ত আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে আসা হয়।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) গ্রেপ্তারকৃত আলাউদ্দিনকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড চাওয়া হবে জানিয়েছে পুলিশ।

নাজিম/বার্তাবাজার/না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.