হিজাব নিয়ে ভারতের হাইকোর্টের রায় নিয়ে বিবৃতিতে যা বলল হেফাজত

হিজাব নিষিদ্ধের পক্ষে ভারতের কর্নাটক রাজ্যের হাইকোর্টের দেওয়া রায়কে রাজ্যটির মুসলিম সম্প্রদায়ের ‘ধর্মীয় অধিকারের ওপর সরাসরি হস্তক্ষেপ’ বলে মন্তব্য করেছেন হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ মুহিববুল্লাহ বাবুনগরী। বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) সকালে এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

আল্লামা শাহ মুহিববুল্লাহ বাবুনগরী বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মুসলিম ছাত্রীদের হিজাব নিষিদ্ধের সমর্থনে রায় দিয়ে কর্নাটকের হাইকোর্ট রাজ্যটির মুসলিম সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অধিকারের ওপর সরাসরি হস্তক্ষেপ করেছে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের হিজাব নিষিদ্ধে প্রথমে বিজেপির নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার নিষেধাজ্ঞা দেওয়ায়, মুসলিম শিক্ষার্থীরা ন্যায়বিচারের আশায় হাইকোর্টে গিয়েছিলেন। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, শ্রেণিকক্ষে হিজাব নিষিদ্ধের পক্ষে রায় দিয়েছে রায় দিয়ে আদালতও বিজেপির রাজ্য সরকারের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। এটি মুসলিম সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপর সরাসরি হস্তক্ষেপ।

আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী বলেন, কর্নাটক হাইকোর্ট বলেছে, হিজাব মুসলিম নারীদের জন্য বাধ্যতামূলক নয়! আমরা জানতে চাই, তারা কীভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে মুসলিমদের জন্য কোনটা বাধ্যতামূলক বা কোনটা বাধ্যতামূলক নয়? ইসলামে পর্দা করা ফরজ। প্রত্যেক মুসলিমদের জন্য পর্দা একটি বাধ্যতামূলক ইবাদত। নারীদের পর্দার প্রধান অনুষঙ্গ হিজাব, আর সেই হিজাবকেই বলা হচ্ছে— ইসলামে বাধ্যতামূলক নয়! এটি স্পষ্টত ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ। আমরা এ ধরনের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে উদাত্ত আহ্বান জানাই।

বাবুনগরী বলেন, ভারতের সুপ্রিমকোর্টকে অবশ্যই এ রায় বাতিল করতে হবে। এই রায়ের মাধ্যমে মুসলিমদের অধিকার ক্ষুণ্ন করা হয়েছে।

বার্তাবাজার/না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.