সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) শাখা ছাত্রলীগের ২১ মার্চের ডাকা ‘সমন্বিত হল সম্মেলন’ স্থগিত করা হয়েছে। গত ৯ মার্চ কুবি শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে প্রথমে ১৯ মার্চ ও পরবর্তীতে ২১ মার্চ হল সম্মেলনের ডাক দেয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এ সম্মেলনকে স্থগিত করার আদেশ দেয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ কর্তৃক কুবি শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কর্মসূচী ও পরিকল্পনা সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন।

তিনি বলেন, আপাতত হল সম্মেলন হচ্ছেনা। যেহেতু উনারা একবার কয়েকটা হলে কমিটি দিয়েছে, আবার হল সম্মেলন ডেকেছে এ বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করেই কেন্দ্রীয় সভাপতি-সম্পাদক উনাদের সাথে (ইলিয়াস-মাজেদ) কথা বলে আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

কুবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, প্রস্তুতির জন্য ও প্রধান অতিথি নির্ধারণ করতে পারি নাই এখনো, তাই আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে। তবে আজ অথবা কালই ডেট দিয়ে দিব রমজানের আগেই সম্মেলন করতে।

তবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ থেকে সম্মেলন স্থগিত রাখার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন্দ্র থেকে যদি কোনো নির্দেশনা দেয় সেক্ষেত্রে সেটা অবশ্যই আমলে নিব। যেহেতু মেয়েদের হলে কমিটি হয়নি তাই সম্মেলন হতে কোনো বাধা নেই।

কুবি শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কর্মসূচী ও পরিকল্পনা সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কুবির বর্তমান কমিটি মেয়াদ উত্তীর্ণ। তারা হয়ত চেয়েছিল যেগুলো হলের কমিটি হয়নি সেগুলোর সাথে তারা যেসব হলে কমিটি দিয়েছে সেগুলোর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গিয়েছে সেসবের নতুন করে কমিটি দেয়ার। কিন্তু তারা যেহেতু একবার কয়েকটা হলে কমিটি দিয়েছিলো সেগুলোতে আবার কমিটি দেয়া এসব সার্বিক বিষয় বিবেচনা করেই আপাতত সম্মেলনের সিদ্ধান্ত নেই।

তিনি আরো বলেন, লোকাল এমপি-মন্ত্রীদের সাথে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সমন্বয় করে মেয়েদের হল কমিটির আগেই কুবি শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি আসতে পারে। আবার মেয়েদের হলে কমিটি হয়নি সেগুলোর কমিটি হয়ে পরে কুবির নতুন কমিটিও আসতে পারে। কুবির কমিটিও যেহেতু মেয়াদ উত্তীর্ণ। এগুলো সিদ্ধান্ত সামনে আসবে।

উল্লেখ্য, কুবি শাখা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটিকে (ইলিয়াস-মাজেদ) অনুমোদন দিয়েছিল বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন। তারা এবং তাদের পরে আসা শোভন-রাব্বানীও সাবেক হয়ে গেলেও ২০১৭ সালের ২৬ মে দেয়া কুবি শাখা ছাত্রলীগের কমিটি এখনো বহাল রয়েছে। অথচ এই কমিটি এক বছর মেয়াদে দেয়া হয়েছিল।

দীর্ঘদিনেও কুবি শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি না হওয়ায় নতুন কমিটির পদ প্রত্যাশীরা এ নিয়ে মারাত্মক ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। তারা বলছেন, পড়াশুনা শেষ করে চলে যাওয়ার সময় হয়ে যাচ্ছে, অথচ নতুন কমিটি না হওয়ায় ৫ বছর ধরে ছাত্রলীগের কর্মী ছিলাম কর্মী থাকাবস্থায়ই বিদায় নিতে হবে। ৫ বছর ছাত্রলীগ করেও নতুন কমিটি না দেয়ায় নেতা হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে না। অথচ এদিকে যেখানে কুবি শাখা ছাত্রলীগের কমিটি হওয়ার কথা, যারা কুবি শাখার সভাপতি-সম্পাদক পদপ্রত্যাশী তাদেরকে নিয়ে হল সম্মেলনে নাচাচ্ছে।

সাজ্জাদ/বার্তাবাজার/এম.এম

Leave a Reply

Your email address will not be published.