সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

অভাব-অনটন যেন পিছুই ছারছে না সংসারে। তারমধ্যে আবার নার্ভের সমস্যায় ভুগছিলেন স্ত্রী পিংকি ঘরামি। কোনোমতে দিন পার করতে পারলেও স্ত্রীর চিকিৎসা করার ক্ষমতা ছিলো না স্বামী রাজেশ ঘরামির। এসব নিয়ে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন স্ত্রী পিংকি। উপায় না পেয়ে সেই অবসাদ থেকেই শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন পিংকি।

স্ত্রীর এমন বিদায়ের খবর শুনে হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যুবরণ করেন স্বামীও। ঘটনাটি ভারতের দক্ষিণ পশ্চিম কলকাতার বেহালা অঞ্চলের।

ভারতীয় গণমাধ্যম জি নিউজের তথ্য মতে, কয়েক বছর ধরেই নার্ভের সমস্যায় ভুগছিলেন পিংকি। কিন্তু আর্থিক অনটনের কারণে সেভাবে চিকিৎসা করাতে পারছিলেন না। ফলে মানসিক অবসাদেও ভুগছিলেন তিনি। শেষমেশ ঘরেই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেন পিংকি।

স্ত্রীর আত্নহত্যার খবর শুনে বাড়িতে এসেই অসুস্থ হয়ে পড়েন স্বামী রাজেশ ঘরামি। এরপর গোসল করতে গিয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। সূত্র : জি নিউজ

বার্তাবাজার/না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.