সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২

দেশের মাটিতে বরাবরই অপ্রতিরোধ্য দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদের মাটিতে কখনো ওয়ানডে ক্রিকেটের জেতার সুখ স্মৃতি ছিলো না। তবে, এবার সেই স্মৃতি পেয়েছে বাংলাদেশ। প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতেউ তাদের হারিয়েছে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। তাই তো শেষ ম্যাচ জিতে প্রথমবারের মতো সিরিজ জয় করার হাতছানি বাংলাদেশের সামনে।

তাসকিন আহমেদের আগুনঝড়া বোলিংয়ে স্বাগতিকদের মাত্র ১৫৪ রানেই আটকে ফেলেছে বাংলাদেশ। তাই সিরিজ জিততে বাংলাদেশকে করতে হবে মাত্র ১৫৫ রান।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন প্রোটিয়ান দুই ওপেনার জানেমান মালান ও কুইন্টন ডি কক। ৬ ওভারেই সংগ্রহ করেন ৪৫ রান। এরপরই মেহেদী মিরাজ ডি কককে ফেরালে রানের গতি কিছুটা কমে স্বাগতিকদের। ১২ রান করে ডি কক ফিরলেও একপ্রান্তে আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে মালান।

অপরপ্রান্তে তিনে নামা কাইল ভেরেইনকে তাসকিন ফেরালে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় বাংলাদেশ। ওপেনার মালান ও চারে নামা অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা সাবধানী ক্রিকেট খেলতে থাকেন। বাংলাদেশী বোলাররাও চাপে ফেলে এই দুই ব্যাটারকে।

বোলারদের চাপে শেষ পর্যন্ত ধরা দেন মালান ও বাভুমা। ওপেনার মালানকে ব্যক্তিগত ৩৯ রানে মুশফিকের ক্যাচে পরিণত করেন তাসকিন। পরের ওভারে সাকিবের বলে এলবিডাব্লিউয়ের শিকার হয়ে ফেরেন ২ রান করা বাভুমা। এর দুই ওভার পরেই আবারো আঘাত হানেন শরিফুল ইসলাম। ফেরান সাবধানী রাসি ভ্যান ডার ডুসেনকে।

এরপর ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ২৪ রানের জুটি গড়েন প্রিটোরিয়াস ও মিলার। যার মধ্যে ২০ রানই এসেছে প্রিটোরিয়াসের ব্যাট থেকে। ১টি করে চার ও ছয় হাঁকানো এই ব্যাটারকে মুশফিকের ক্যাচ বানিয়ে ফিরিয়েছেন তাসকিন।

এরপর এক ওভারে মিলার ও রাবাদাকে ফিরিয়ে নিজের ফাইফার পূর্ণ করেন এই পেসার। মিলার ফেরেন ১৬ রান করে।

বার্তাবাজার/না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.