শিশুদের কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

ইবি প্রতিনিধি –
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাতই মার্চের ভাষণ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার ঐতিহাসিক সাত মার্চ ভাষণ দিবস উপলক্ষ্যে সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র-নজরুল কলা ভবনের গগণ হরকরা গ্যালারি ভবনে এটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইবি ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে দিবসটি উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রেজারার প্রফেসর ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া। এতে বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড. রবিউল ইসলামের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মু. আতাউর রহমান।

অনুষ্ঠানে প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন, ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর ড. সেলিনা নাসরীন, প্রফেসর ড. মামুনুর রহমান, প্রফেসর ড. শাহজাহান মন্ডল, প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হকসহ ইবি ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের সকল স্তরের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও দেশ পরিচালনার সুস্পষ্ট নির্দেশনা ছিল জাতির জনকের ৭ মার্চের ভাষণে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে আমরা সবাই যদি পরিপূর্ণভাবে জানতাম তাহলে আজ আমরা বিভাজীত হতাম না। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা আজ স্বাধীন দেশ ও স্বাধীন ভাবে কথা বলতে পারতাম না। বঙ্গবন্ধুকে আমরা চোখে দেখিনি। তবে বঙ্গবন্ধু সর্ম্পকে বিভিন্ন ধরনের বই পড়ে আমরা তার সম্পর্কে জানতে পারি।

এর আগে দিবসটি উপলক্ষ্যে সকাল ১০ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এরপর একে একে বঙ্গবন্ধু পরিষদ, শাপলা ফোরাম, বিভিন্ন বিভাগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদ্দাম হোসেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের আয়োজনে দেয়ালে গ্রাফিতি অঙ্কণ, স্বেচ্ছায় রক্তাদান কর্মসূচি ও বিতর্ক প্রতিযোগীতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.