লাল তালিকা থেকে সব দেশের নাম বাদ দিলো যুক্তরাজ্য

নভেম্বরের শেষ দিকে আফ্রিকার ১১টি দেশকে কোভিড-১৯ ভ্রমণ বিধিনিষেধের আওতায় লাল তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে যুক্তরাজ্য। আফ্রিকা মহাদেশে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ায় এ সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির সরকার। তবে এখন লাল তালিকায় থাকা দেশগুলো নাম সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাজ্য। আজ বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) থেকেই তা কার্যকর হয়েছে। খবর প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সর্বপ্রথম ওমিক্রন শনাক্ত হয় দক্ষিণ আফ্রিকা ও হংকংয়ে। এর পরই ব্রিটিশ সরকার নির্দেশনা জারি করে যে, লাল তালিকায় থাকা দেশগুলো থেকে কেবল ব্রিটিশ নাগরিক ও বাসিন্দারাই যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করতে পারবে। এক্ষেত্রে পৌঁছানোর পরই হোটেলে কোয়ারেন্টিন করতে হবে। এর বাইরে আর কেউ যুক্তরাজ্যে ঢুকতে পারবে না। কিন্তু এখন দেশটিতে ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে। যার কারণে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্রিটিশ সরকার।

যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেন, ‘এখন যুক্তরাজ্যে ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে এবং সারা বিশ্বে এটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। তাই ভ্রমণের লাল তালিকা দিয়ে এখন আর বিদেশ থেকে ওমিক্রন আসার প্রভাব কমানোর কম কার্যকর।’

লাল তালিকায় যে ১১টি দেশ ছিল সেগুলেঅ হলো- অ্যাঙ্গোলা, বতসোয়ানা, এসওয়াতিনি, লেসোথো, মালাউই, মোজাম্বিক, নামিবিয়া, নাইজেরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জাম্বিয়া ও জিম্বাবুয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.