রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের কারণে আরও খারাপ হতে পারে কোভিড পরিস্থিতি

রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধক্ষেত্র থেকেও ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস, আশঙ্কা প্রকাশ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। ইউক্রেন তো বটেই, তার প্রতিবেশী দেশগুলিকেও এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। একই সঙ্গে হু-র তরফে রাশিয়ার সেনাবাহিনীকে অনুরোধ করা হয়েছে, তারা যেন ইউক্রেনের স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং হাসপাতালগুলির কোনও ক্ষতি না করে। দু’দেশের এই যুদ্ধের প্রভাব করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে না পড়ে সে দিকটাও খেয়াল রাখার আর্জি জানানো হয়েছে।

বিগত ১৯ দিনে প্রায় ২০ লক্ষ মানুষ ইউক্রেন ছেড়ে প্রতিবেশী দেশগুলিতে আশ্রয় নিয়েছেন। হু-র আশঙ্কা এঁদের থেকেই সংক্রমণ ছড়ানোর প্রভূত আশঙ্কা রয়েছে। কারণ, প্রথমত, ইউক্রেনের বাসিন্দাদের টিকাকরণের মাত্রা ৩৪ শতাংশ। যা অন্যান্য দেশের নিরিখে অত্যন্ত কম। দ্বিতীয়ত, গত ৩-৯ মার্চ ইউক্রেন এবং সংলগ্ন দেশগুলিতে করোনা সংক্রমণের হার অত্যধিক বেড়েছে। এই ছ’দিনে ইউক্রেন-সহ পড়শি দেশগুলিতে সাত লক্ষ ৯১ হাজার ২১জনের মধ্যে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৮ হাজার ১২ জনের। হু-র মতে এই সংখ্যা উদ্বেগজনক।

ইউক্রেনে যে করোনা সংক্রমণ ক্রমেই বাড়ছে এবং আগামী দিনে আরও উত্তরোত্তর বাড়তে চলেছে তা জানিয়েছেন,হু-র স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি বিভাগের এগজিকিউটিভ ডিরেক্টর মাইক রায়ানও। তিনি বলেছেন, ‘যুদ্ধের কারণে ইউক্রেনে কোভিড টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া থমকে গিয়েছে। বন্ধ হয়ে গিয়েছে কোভিড পরীক্ষাও। আর এটাই সবচেয়ে উদ্বেগের একটা কারণ।’ যুদ্ধের পর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়া ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের প্রসঙ্গও তুলেছেন রায়ান। তাঁর কথায়, “এই শরণার্থীরা অজান্তেই ভাইরাস বহন করে আনতে পারেন নিজেদের সঙ্গে।

এই সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে তার জন্য নানা রকম সতর্কতামূলক পদক্ষেপ করছে হু। হাঙ্গেরি, রোমানিয়া, স্লোভাকিয়ার মতো ইউক্রেনের প্রতিবেশী দেশগুলি শরণার্থীদের বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষা এবং টিকাকরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে ইতিমধ্যেই। তবে যে ভাবে ইউরোপে করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে, তাতে দু’দেশের এই যুদ্ধ সেই পরিস্থিতি আরও ঘোরালো করবে বলে মনে করছে হু।

এই পরিস্থিতিতে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনের জনতার কথা মনে করিয়ে দিয়ে রুশ ফৌজের প্রতি একটি বিবৃতিতে হু জানিয়েছে, তারা যেন ইউক্রেনের স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং হাসপাতালগুলির ক্ষতি না করে। সেখানে বোমাবর্ষণ না করে। এ ছাড়া, সীমা পেরনোর সময় মহিলা এবং শিশুদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সীমান্তবর্তী এলাকায় উপযুক্ত স্বাস্থ্য পরিষেবা দেওয়ারও আর্জি জানিয়েছে হু। সূত্র:আনন্দবাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published.