October 3, 2022

ন্যাটো সদস্যভুক্ত দেশ তুরস্কের সাথে রাশিয়া-ইউক্রেন উভয়েরই সুসম্পর্ক রয়েছে। যার কারণে রাশিয়া ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের শুরু থেকেই এই সংঘাতের মধ্যস্থতা করার চেষ্টা করছে তুরস্ক।

এরই মধ্যে রবিবার তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেছেন, আত্মরক্ষার জন্য কিয়েভকে আরও সমর্থন করা প্রয়োজন। তবে রাশিয়ার কথাগুলোও শুনতে হবে।

যদি সবাই রাশিয়ার সাথে দূরত্ব বজায় রাখে, তাহলে দিন শেষে তাদের সাথে কথা বলবে কে? দোহা আন্তর্জাতিক ফোরামে তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন এমন প্রশ্ন রাখেন।

তিনি আরও বলেন, ইউক্রেন যেনো নিজেদের রক্ষা করতে পারে সেজন্য সম্ভাব্য সব উপায়ে তাদের সমর্থন করা প্রয়োজন। তবে একইসাথে অবশ্যই রাশিয়ার কথাগুলোও শোনা উচিত, এক বা অন্যভাবে। তাদের উদ্বেগ ন্যায্য কিনা সেটা বোঝার জন্য।

তুরস্ক আরও বলছে, ইউক্রেন যুদ্ধের অবসানে রাশিয়ার সাথে তাদেরসহ অন্যান্য দেশগুলোর আলোচনা চলমান রাখতে হবে।

নব যুগান্তর /না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.