রাজকীয় মর্যাদা ত্যাগ করে কলেজ জীবনের ভালোবাসাকে বিয়ে

জাপানের রাজকুমারী মাকো রাজকীয় মর্যাদা ত্যাগ করে কলেজ জীবনের ভালোবাসার মানুষকে বিয়ে করলেন। তার স্বামী কোমুরো পেশায় একজন আইনজীবী। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আইন অনুসারে জাপানের রাজপরিবারের কোনো নারী সদস্য যদি বাইরের কোনো সাধারণ পুরুষকে বিয়ে করেন, তবে তার রাজকীয় মর্যাদা আর থাকে না। কিন্তু পুরুষ সদস্যের ক্ষেত্রে এ নিয়ম প্রযোজ্য নয়।

রাজপদবি হারানোর পর ঐতিহ্য অনুযায়ী ১৩ লাখ মার্কিন ডলার পাওয়ার কথা মাকোর। কিন্তু তিনি এই অর্থ নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন বলে জানা গেছে। ফলে, জাপানি রাজপরিবারের তিনিই একমাত্র সদস্য, যিনি ভালোবাসার জন্য পদপদবি-অর্থ ত্যাগসহ পুরোপুরি রাজকীয় সম্পর্ক ছিন্ন করলেন।

জানা যায়, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ১০টায় মাকো তার টোকিওর বাসভবন ছাড়েন। এর আগে তিনি তার মা–বাবাকে সম্মান প্রদর্শন করেছেন। বাসভবন ছাড়ার আগে তিনি তার ছোট বোনকে আলিঙ্গন করেন।

গত কয়েক বছর ধরে এই জুটির প্রেম-ভালোবাসা-বিয়ের বিষয়টি জাপানের গণমাধ্যমে ব্যাপক প্রচার পাচ্ছে। বিয়ের পর মাকো ও কোমুরো দম্পতি যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ কোমুরো একজন আইনজীবী। তার কর্মস্থান যুক্তরাষ্ট্রে। বিয়ের পর সেখানেই তাদের ঠিকানা হবে।ভালোবাসার মানুষ কোমুরোকে বিয়ের জন্য রাজকীয় মর্যাদা ছাড়ার ঘোষণা আগেই দিয়েছিলেন মাকো। বহুল আলোচিত এই বিয়ের আগে গত শনিবার মাকো তার ৩০তম জন্মদিন উদ্‌যাপন করেন। রাজকীয় পদবি হারানোর আগে জাপানি রাজকুমারী হিসেবে এটাই ছিল তার শেষ জন্মদিন উদ্‌যাপন ছিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.