মেসি-নেইমার বল পেলেই ‘ট্রল’ করছেন পিএসজি সমর্থকরা

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের খরা কাটাতে রেকর্ড ট্রান্সফার ফি’তে পিএসজিতে আনা হয় ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার ও আর্জেন্টাইন সেনশেন লিওনেল মেসিকে। কিন্তু পিএসজির সে স্বপ্ন পূরণের নয়, অন্তত এই মৌসুমে। কারন রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে শেষ ষোলোর ম্যাচে করিম বেনজেমার হ্যাটট্রিকে হেরে এই মৌসুম থেকে বিদায় নিতে হয়েছে পিএসজিকে।

রিয়ালের বিপক্ষের হাইভোল্টেজ ম্যাচে অনেকটাই নিষ্প্রভ ছিলেন পিএসজির দুই শীর্ষ তারকা লিওনেল মেসি ও নেইমার জুনিয়র। এটাকেই রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে হারার কারন হিসেবে বেছে নিয়েছে পিএসজি সমর্থকরা। তাই তাদের প্রতি যে সমর্থকরা পুরোপুরি অসন্তুষ্ট, সেটার প্রমাণ রিয়াল ম্যাচের ঠিক পরের ম্যাচেই।

ঘরের মাঠ পার্ক দ্য প্রিন্সেসে লিগ ওয়ানের ম্যাচে বোরডেওক্সেকে আতিথ্য দিচ্ছে ক্লাবটি। এই ম্যাচের শুরু থেকেই মেসি-নেইমার বল পেলেই তাদের ধুয়ো দিচ্ছেন পিএসজি সমর্থকরা। তবে, উল্টোটা হচ্ছে দলের আরেক তারকা কিলিয়ান এমবাপের ক্ষেত্রে। তিনি বল পেলেই সমর্থকরা চিৎকার করে তাকে অভিবাদন জানাচ্ছেন।

তবে, সমর্থকদের অভিবাদন দেওয়ার এই রীতি খুব বেশিদিন চলবে বলে মনে হয় না। কারণ চলতি মৌসুমেই ফ্রিতে পিএসজি ছাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে এমবাপের। এই ফ্রেঞ্জ ফরোয়ার্ডের রিয়ালে যাওয়ার ব্যাপারে তার সবকিছু চূড়ান্ত বলে শোনা যাচ্ছে।

এর একদিন আগেই ক্লাবের বর্তমান সভাপতি নাসির আল খেলাইফির পদত্যাগের দাবি তুলেছিলেন পিএসজি সমর্থকরা। তারা রদবদলও চেয়েছেন ক্লাবের বোর্ড অব ডিরেক্টরদের। ২০১১ সালে পিএসজিকে কাতারি মালিক কিনে নিলে ক্লাবের সিইও ও সভাপতি হন খেলাইফি।

এরপর থেকে দলকে একটা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতাতে মরিয়া তিনি। ঘরোয়া লিগে প্রায় সব ট্রফিতেই নিজেদের আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করলেও পারেনি ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায়। দলটির সর্বোচ্চ সাফল্য ২০১৯-২০ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল খেলা।

বার্তাবাজার/না. সা.

Leave a Reply

Your email address will not be published.