October 3, 2022

টাঙ্গাইলের মেয়ে আঁখি আর নোয়াখালীর মেয়ে বিলকিস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক থেকে তাদের কথা। এরপর পার্কে দেখা-সাক্ষাৎ হয় বিলকিস-আঁখির। তারপর প্রেম ভালোবাসা সৃষ্টি। ভালোবাসার টানে নোয়াখালী থেকে টাঙ্গাইলে আঁখির কাছে ছুটে আসে বিলকিস। এঘটনায় এলাকায় ব্যাপক তর্ক-বিতর্ক চলছে।

টাঙ্গাইলের মেয়ে আঁখি বলেন, ফেসবুক মেসেঞ্জারের মাধ্যমে বিলকিসের সাথে আমার কথা হয়। তারপর আমরা ঢাকায় দেখা করি। এবং দুজন ঢাকাতে এক সাথে কাজ করি। পরে পরিবার আমাদের আলাদা করে আমাকে বাড়িতে নিয়ে আসে।

আঁখি আরো বলেন, পরে আমি ওর নাম্বারে ফোন করে আমরা আবার কথা বলি। আমি তাকে ছাড়া বাঁচবো না। মরলে একসাথে মরবো এবং বাঁচলে একসাথে বাঁচবো।

নোয়াখালী থেকে টাঙ্গাইলের আঁখির কাছে আসা বিলকিস বলেন, ফেসবুকের মাধ্যমে প্রায় দুই বছর ধরে আমাদের কথা হয়। পরে ঢাকায় চাকরি নিয়ে আমরা একসাথে থাকি। এবং আমরা এক সাথেই থাকতে চাই।

এঘটনায় আঁখির মা বলেন, আমার মেয়েকে আমার কাছে রাখতে চাই। আমি ওই মেয়ের কাছে যেতে দিতে চাই না।

এলাকাবাসী জানান, মেয়ের সাথে মেয়ের বিয়ে আমরা কখনও দেখিনি। এগুলো ইউরোপ কান্ট্রিতে হয়। শুনেছি ওরা এক-দেড় মাস আগে বিয়েও করেছে। এগুলো সত্যিই কখনও আমরা কল্পনাও করিনি। বাংলাদেশেও এমন কিছু হবে আমরা কখনও ভাবিনি।

বাংলাদেশের মতো একটি রক্ষণশীল দেশে সমকামীতা নিষিদ্ধ। যদিও কিছু সংগঠন সমকামীতাকে প্রতিষ্ঠিত করতে কাজ করছে। সূত্র: যমুনা টেলিভিশন।

বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.