বিধ্বংসী ঝড়ই হবে পৃথিবীর ‘নিউ নর্মাল’, মার্কিন বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা

জলবায়ু যেভাবে পরিবর্তন হচ্ছে তাতে আগামী দিনে আরও ভয়ঙ্কর ঝড় হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন মার্কিন ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সির পরিচালক ডিন ক্রিসওয়েল। খবর এএফপি-র।

সারা বিশ্বের আবহাওয়াবিদরা বারবার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তন অব্যাহত থাকলে সারা বিশ্বের আবহাওয়া আরও চরম আকার ধারণ করবে। কিন্তু এই চেহারা যে কতটা ভয়ঙ্কর তার উদাহরণ পাওয়া গেল যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকিতে। স্থানীয় সময় অনুযায়ী শুক্রবার মধ্যরাতে পরপর একাধিক টর্নেডো আছড়ে পড়ে আরকানসাস থেকে কেন্টাকি পর্যন্ত। প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা ধরে ৪০০ কিমি বেগে টর্নেডো হয়েছে। ঝড়ের সতর্কতা থাকলেও, তা এতটা ভয়ঙ্কর আকার নেবে, তা কল্পনা করা যায়নি। এখন পর্যন্ত ঝড়ের তান্ডবে শতাধিক মানুষ মারা গেছে। ধ্বংসস্তূপ সরাতে এখনো উদ্ধার কাজ চলছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ছয়টি রাজ্যে বিশাল টর্নেডো হওয়ার পর মার্কিন জরুরি ব্যবস্থাপনার শীর্ষ কর্মকর্তা রবিবার বলেছেন, ‘এটাই হবে আমাদের নিউ নর্মাল(নতুন স্বাভাবিক)। তিনি মনে করিয়ে দেন জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য আগামীতে কতটা সমস্যা করতে পারে। তিনি বলেন ‘আমরা আরও ভয়ঙ্কর ঝড়ের সাক্ষী হব, সে হারিকেনই হোক বা টর্নেডো, হতে পারে ভয়ঙ্কর দাবানলও। কী ভাবে এই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি মিলতে পারে, সেই পথ ভাবতে হবে আমাদের।’

সম্প্রতি প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে বৈজ্ঞানিক সমিতি এজিইউ জানিয়েছে, “বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে গুরুতর আবহাওয়ার অনুকূল পরিস্থিতির ঘটনাকে প্রভাবিত করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.