September 26, 2022

দেশজুড়ে লকডাউনের সময় ২০২০ সালের ২০ মে মদের পার্টি আয়োজন করে ব্যাপক চাপের মুখে বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এরমধ্যে এলো আরো নতুন খবর। ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী ও ডিউক অব এডিনবরা প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্যের আগের সন্ধ্যায় বরিসের সরকারি বাসভবনের ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে আরো দুই পার্টি হয়েছিল বলে প্রতিবেদনে এসেছে।

টেলিগ্রাফের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের ১৬ মে করা হয় সেই আয়োজন। তাতে অন্তত ৩০ জন অংশ নিয়েছিলেন। পার্টি ছিল মদ ও নাচের।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সে সময় করোনার কারণে জারি করা বিধিনিষেধ অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন বাড়িতে বসবাসরত মানুষেরা একত্রে এমন আয়োজন করতে পারবে না।

১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের পক্ষ থেকে এ নিয়ে বিদায়ী ভাষণের কথা স্বীকার করলেও পার্টির বিষয়ে কোন মন্তব্য করেনি। তবে বরিস এই পার্টিতে ছিলেন না বলে খবরে বলা হয়েছে।

এদিকে গতকাল বুধবার ২০২০ সালের মে মাসে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে পার্টিতে যোগদানের ব্যাপার স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে বরিস বলেন, আমি জনগণের ক্ষোভ বুঝতে পেরেছি।

বুধবার পার্লামেন্টে বরিস বলেন, আমি বুঝি আমার নেতৃত্বের সরকারকে নিয়ে তারা আমার প্রতি ক্ষুব্ধ, কেননা তারা ভাবছে যখন ডাউনিং স্ট্রিটে নিয়মগুলো যারা তৈরি করে তারাই তা সঠিকভাবে মানছে না।

বরিসের এমন কর্মকাণ্ডে দেশটির প্রধান বিরোধী দলগুলো বরিসের পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন। অন্যদিকে স্কটল্যান্ডের কনজারভেটিভ দলের প্রথম কেউ বরিসের পদত্যাগ চেয়েছেন।

লেবার পার্টির নেতা কেইর স্টারমার বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনকে বের করে নিবেন এমন অঙ্গীকারের পর জনগণ ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে জনসনকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করেন। তবে এখন জনগণ মনে করেন তিনি একজন মিথ্যাবাদী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.