October 2, 2022

বিদ্যুৎ-পানি সংকট সহ আরো কয়েকটি সমস্যা সমাধানের দাবিতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) উপাচার্যের বাসভবন অবরোধ করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) নবাব ফয়জুন্নেসা চৌধুরানী হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (১৮ মার্চ) বিকাল সাড়ে পাঁচটায় তারা উপাচার্য বাসভবনের সামনে অবস্থান নেয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় দীর্ঘ জ্যামের সৃষ্টি হয়।

অবরোধ চলাকালে শিক্ষার্থীরা সড়কের দু’পাশের গাড়ি আটকে তাদের বালতি, বোতল ইত্যাদি তৈজসপত্র বাজিয়ে ‘নবাববাড়ি অন্ধকার ভিসির বাড়িতে লাইট জ্বলে’, ‘নবাববাড়ি কেন রাজপথে, জবাব চাই, জবাব চাই’, ‘প্রশাসন ধিক্কার, ধিক্কার’ স্লোগান দিতে দেখা যায়।

তাদের দাবিগুলো হলো- পানি সমস্যা, বাসস্থান সমস্যা, ওয়াইফাই স্প্রিড কম, হলে ক্যান্টিন ব্যবস্থা, খাবারের নিম্নমান, খাবারে ভর্তুকি এবং বর্তমানের দ্রুত বিদ্যুৎহীন পরিস্থিতি ঠিক করা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, শিক্ষার্থীদের হলে বিদ্যুৎ থাকবেনা এটা ভাবা যায় না। এটা খুবই বাজে পরিস্থিতি। আমার বাংলোতেও বিদ্যুৎ ছিল না, আমি নিজেও শাওয়ার নিতে পারিনি। যে লাইট জলে এটা আইপিএসের। আর এতে অফিসিয়াল বিভিন্ন কাজও বাধাগ্রস্ত হয়েছে। আমি চিপ ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলেছি, এটা দ্রুত সমাধানে কাজ করছে তারা। আর আমরা বিদ্যুতের আরেকটা লাইন তৈরির কাজ করতে পারি কিনা তা নিয়েও দেখবো।

উল্লেখ্য,গত ১৬ মার্চ রাত থেকে মেয়েদের নবাব ফয়জুন্নেসা চৌধুরানী হল, ছেলেদের বঙ্গবন্ধু হলের পুরাতন অংশ, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হল ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম হল, উপাচার্যের বাসভবন, শিক্ষক-কর্মকর্তাদের ডরমিটরিসহ প্রায় সকল ভবনেই বিদ্যুৎ সংকট দেখা দেয়। একই কারণে সৃষ্টি হয়েছে পানির সংকট, পাশাপাশি বন্ধ রয়েছে ওয়াইফাই সংযোগ। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তারা।

বার্তাবাজার/এম.এম

Leave a Reply

Your email address will not be published.