October 1, 2022

নোয়াখালীর বিছিন্ন দ্বীপ হাতিয়ার জোরখাল বাজারের এক বিকাশ ব্যবসায়ীকে জলদস্যু বানিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে মনপুরা থানা পুলিশের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগী নাহিদ হোসেন হ্নদয় হাতিয়া জোরখাল বাজারের বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ী। সে তমরদ্দি ইউনিয়নের জোড়খালী গ্রামের হাজী মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে। হ্নদয় ওই বাজারে দীর্ঘ ৫ বছর ধরে ব্যবসায় করে যাচ্ছেন।

ভুক্তভোগী নাহিদ হোসেন হ্নদয়ের বাবা মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার দিকে হ্নদয়ের পার্সোনাল বিকাশে নাম্বার থেকে একটি কল আসে। হ্নদয় কল রিসিভ করার পর অপরপ্রান্ত থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তি হ্নদয়কে জানায় তাঁর বিকাশ নাম্বারে বেশ কিছু টাকা পাঠানো হবে। তখন হ্নদয় জানান, টাকা নেওয়ার সময় যেনো ন্যাশনাল আইডি কার্ড নিয়ে আসা হয়। এর কয়েক মিনিটের মধ্যে হ্নদয়ের পার্সোনাল বিকাশ নাম্বারে ৩০ হাজার টাকা ক্যাশ জমা হয়।

১০ মিনিট পর হ্নদয়ের ওই বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ হয়ে যায়৷ তাৎক্ষণিক হ্নদয় ও তাঁর বাবা মোয়াজ্জেম হোসেন বিকাশ এজেন্টের সাথে কথা বলে, পরে বিকাশ এজেন্ট কর্মকতা বলে একাউন্টি ঠিক হয়ে যাবে, ঠিক না হওয়ার তার দুই দিন পরে হাতিয়া থানায় বিষয়টি অবগত করেন। এবং এ বিষয়ে ওই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে ইচ্ছা প্রকাশ করেন। কিন্তু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ সাইদ জিডি নিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এর দুইদিন পর হ্নদয় পুনরায় ওই থানায় আবারও বিষয়টি অবগত করতে গেলে ওসি সেসময়ও জিডি নিতে অপারগতা প্রকাশ করে ওসি জানান, এবিষয়ে কোনো জিডি করার প্রয়োজন নেই। হয়তো কারিগরি ত্রুটিতে একাউন্টটি বন্ধ হয়ে গেছে। এটি পুনরায় সচল হয়ে যাবে।

ঘটনার দুদিন পর মনপুরা থানা পুলিশের একটি টিম হ্নদয়কে তাঁর ব্যবসায়ীক দোকান থেকে জলদস্যুর অভিযোগ এনে থানায় নিয়ে যায়।

এরপর হ্নদয়কে মনপুরা থানায় হস্তান্তর করা হলে পুলিশ তাকে জলদস্যুর সাথে তাঁর সম্পৃক্ত আছে দাবি করে তাঁর বিরুদ্ধে একটি দস্যুতা মামলা দেখিয়ে তাকে ভোলা জেলা জজ আদালতে তোলে এবং আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

এদিকে এর আগেও ওই বাজারের স্থানীয় ব্যবসায়ীরা মনপুরা থানা পুলিশের বিরুদ্ধে নানা হয়রানির অভিযোগ এনে মানববন্ধন করেন।

স্থানীয়রা বলছেন, পুলিশ পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হ্নদয়কে জলদস্যু বানিয়ে ফাঁসিয়ে দিয়েছেন।

এবিষয়ে মামলার বাদী মো. বাবুলের সাথে মুঠোফোনে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে অপ্রসাঙ্গিক কথা তুলে ধরেন।

এ বিষয়ে মনপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ সাইদ জানান, ডাকাতদের সাথে বিকাশ কর্মকর্তার সম্পর্ক থাকার কারণে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অনিক/বার্তাবাজার/এ.আর

Leave a Reply

Your email address will not be published.