বাকৃবিতে হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম শুরু

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ক্যাম্পাসে অবস্থিত হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটে আগামী বছরের ২৩ এপ্রিল থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে।
গত ২৮ শে জুলাই মোট ৪ জন শিক্ষক নিয়োগের মাধ্যমে ৪ বছর পর ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। যার মধ্যে কৃষি, মৎস্যবিজ্ঞান, পশুপালন এবং কৃষি অর্থনীতি অনুষদ থেকে একজন করে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক ড. সুবাস চন্দ্র দাস।

জানা যায়, হাওর ভূমিপুত্র খ্যাত প্রয়াত সাংবাদিক ড. নিয়াজ পাশা ২০১৩ সালে রাষ্ট্রপতি মো.আবদুল হামিদের কাছে এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব দেন। বিষয়টি আমলে নিয়ে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ক্যাম্পাসে ২০১৮ সালের ২২ জুলাই রাষ্ট্রপতি ইনস্টিটিউটটির উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের দীর্ঘ ৪ বছর অতিক্রম করলেও পরিচালক পরিবর্তন ব্যতিত ছিল না দৃশ্যমান কোনো কার্যক্রম। তবে শিক্ষক নিয়োগের মধ্য দিয়ে ইনস্টিটিউটটির কার্যক্রম কিছুটা দৃশ্যমান হয়েছে বলে জানা যায়। তবে ইনস্টিটিউটের অবকাঠামোগত কাজ এখনও আটকে আছে কেবল নাম ফলকেই, তৈরি হয়নি কোনো ভবন।

ড. সুবাস চন্দ্র দাস বলেন, আমি কিছু দিন আগেই এই ইনস্টিটিউটের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছি। এখানে অনেক কাজ করার আছে। এখানে ইতোমধ্যে ৪ জন কর্মচারী নিযুক্ত আছে যার মধ্যে ২ জন স্থায়ী ও বাকী ২ জন অস্থায়ী। তবে ইনস্টিটিউটটি পরিচালনার জন্য প্রয়োজন আরও লোকবল। শিক্ষক নিয়োগের যে বিজ্ঞপ্তিটি আটকে ছিল সেটি বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসানের সহায়তায় সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছি। আমার সাথে সহযোগী পরিচালক হিসেবে আছেন কৃষিতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. উত্তম কুমার সরকার। আমরা চেষ্টা করছি ইনস্টিটিউটটিকে সচল করার। ইনস্টিটিউটের জন্য বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের করিম ভবনের নিচ তলায় কক্ষ নেওয়া হয়েছে। তবে এটি অস্থায়ী। মূল ভবন স্থাপিত হলে সেখানে কার্যক্রম শুরু হবে।

মুন/বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.