October 2, 2022

রাজধানীর উত্তরায় প্রাইভেটকারে গার্ডারচাপায় নিহত রুবেল হোসেনের অপেক্ষায় রয়েছেন স্বজনরা। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) নিহতের স্বজনরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে সোমবার (১৪ আগস্ট) ঢাকার উত্তরায় তার ছেলে হৃদয় আলীর বউভাত শেষে প্রাইভেটকারে করে ছেলে ও বউকে পৌঁছে দেওয়ার জন্য রওনা দেন তিনি। পথিমধ্যে গার্ডারচাপায় তার মৃত্যু হয়। এ সময় আহত হন তার ছেলে হৃদয় আলী ও তার বউ।

নিহত ব্যক্তি মেহেরপুর সদর উপজেলার বারাদি ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামের মৃত তারা চাঁদ আলীর ছেলে আইয়ুব আলী ওরফে রুবেল হোসেন।

নিহতের স্বজনরা জানান, প্রায় ২২ বছর আগে গার্মেন্টসে চাকরি জন্য গ্রাম থেকে ঢাকায় চলে যান রুবেল। সেখানে দীর্ঘদিন চাকরির পর বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা শুরু করেন। গত ১০ থেকে ১২ দিন আগেও তিনি গ্রামে এসেছিলেন। রুবেল হোসেনের বোন আদুরি খাতুন বলেন, আমার আরেক ছোট ভাই ইয়াহিয়া মরদেহ আনতে ঢাকায় পৌঁছেছেন। সে বাড়িতে মোবাইল করে বলেছে, মরদেহ হস্তান্তর প্রক্রিয়া শেষে গ্রামের বাড়িতে রওনা হবে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে উত্তরা জসীমউদ্দীন এলাকায় আড়ংয়ের সামনে ক্রেন দিয়ে একটি গার্ডার ওপরে ওঠানো হচ্ছিল। এ সময় ক্রেন উল্টে সেটি প্রাইভেটকারের ওপর পড়ে। গার্ডার পড়ে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে প্রাইভেটকারের ভেতরে থাকা সাতজনের মধ্যে পাঁচজন নিহত হয়। নিহতরা হলেন রুবেল (৬০), ফাহিমা (৪০), ঝরনা (২৮), জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। বেঁচে যাওয়া দুইজন হচ্ছেন নবদম্পতি হৃদয় ও রিয়া মনি। গত শনিবার তাদের বিয়ে হয়।

বার্তাবাজার/এম.এম 

Leave a Reply

Your email address will not be published.