পরিচয় মিলেছে ডাস্টবিনে পাওয়া নবজাতকের, মাসহ গ্রেপ্তার ৩

লালমনিরহাট পৌরসভার ডাস্টবিন থেকে উদ্ধার সেই নবজাতকের পরিচয় মিলেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে শিশুটির মা, বাবা ও নানিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শহরের সাহেবপাড়া এলাকার রেলওয়ে কোয়ার্টার থেকে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে তিনি জানান, শিশুটির মা কলেজছাত্রী। দীর্ঘদিন ধরে তার বড় বোনের স্বামীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি হয় ও মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়ে।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তার মা স্বজনদের অ্যাপেন্ডিসাইটের কথা বলে মেয়েকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। পরদিন ভোরে মেয়েটি হাসপাতালের বাথরুমে মেয়ে সন্তান প্রসব করে।

তার ভগ্নিপতি নবজাতকটিকে পৌরসভার কালীবাড়ি এলএসডি গোডাউনের সামনের ডাস্টবিনে ফেলে রেখে চলে যান। পরদিন সকালে স্থানীয়রা শিশুটিকে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। এরপর তাকে সদর হাসপাতালের নবজাতক ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম দণ্ডবিধি, ১৮৬০-এর ৩০৭ ও ৩১৭ ধারায় অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন।

সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নেওয়াজ মোরশেদ জানান, প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার পর আদালতের নির্দেশে বুধবার শিশুটিকে রাজশাহীর শিশু নিবাসে পাঠানো হয়েছে।

লালমনিরহাট সদর থানার ওসি শাহ আলম জানান, শিশুটির মা কলেজছাত্রী। দীর্ঘদিন ধরে তার বড় বোনের স্বামীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি হয় ও মেয়েটি গর্ভবতী হয়ে পড়ে। লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের বাথরুমে মেয়ে সন্তান প্রসব করে ওই কলেজছাত্রী। তার ভগ্নিপতি নবজাতকটিকে ডাস্টবিনে ফেলে রেখে চলে যান।

ওসি আরও জানান, শিশুটির মা, বাবা ও নানিকে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মারুফা জামান জানান, আমাদের মানবিক পুলিশ সুপার আবিদা সুলাতানা বিপি পি পিএম স্যারের নির্দেশনা নবজাতককে সু্স্থ করার পর আদালতের মাধ্যমে শিশুটিকে রাজশাহী শিশু নিবাসে পাঠিয়েছি। এঘটনায় জড়িতদেরকে আদালতে পাঠানো হবে।

মিজান/বার্তাবাজার/এ.আর

Leave a Reply

Your email address will not be published.