পরকীয়ার জেরেই দুই সন্তানকে বিষ মেশানো মিষ্টি খাইয়ে হত্যা করেন মা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার আলোচিত দুই শিশুর মৃত্যু জ্বরের ওষুধ নাপা সিরাপ খেয়ে নয়, পরকীয়ার জেরে বিষ মেশানো মিষ্টি খাইয়ে তাদের মা লিমা বেগম সন্তানদের হত্যা করেছেন আদালতে জবানবন্দী দেন মা।

আদালতে জবানবন্দী শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে মা লিমাকে। ২ সন্তাকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে সে। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে আশুগঞ্জ থানায় রীমার স্বামী ইসমাইল হোসেন সুজন স্ত্রী ও তার পরকীয়া প্রেমিকসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপরই পুলিশ রীমাকে গ্রেফতার করে।
গত ১০ই মার্চ আশুগঞ্জের দূর্গাপুর গ্রামে রহস্যজনক মৃত্যুর শিকার হয় মো: ইয়াছিন খান(৪) ও মো: মোরসালিন খান(৪)। এরপরই তাদের মৃত্যু নাপা সিরাপ খেয়ে হয়েছে বলে পরিবারের স্বজনরা অভিযোগ তুলেন। এনিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। তবে এক সপ্তাহ পর নাটকীয় মোড় নেয় এ ঘটনা। বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ প্রেস ব্রিফিং করে এ ঘটনার বিস্তারিত জানিয়েছে।

পুলিশের প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়- ১২ বছর আগে রীমা ও ইসমাইলের বিয়ে হয়। ইসমাইল শারিরীকভাবে অসুস্থ হওয়ায় রাইছ মিলে কাজ করার সুবাধে মিলের সর্দার সফিউল্লাহ ওরফে সোইয়েরে সাথে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। তাদের সম্পর্ক গভীর হলে তারা দু’জনে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। সে লক্ষ্যে ঘটনার দিন বিকেল ৫ টার দিকে সফিউল্লাহ রীমার হাতে ৫টি বিষমিশ্রিত মিষ্টি এনে দেয়। এরপর শিশু দুটির জ্বর এসেছে বলে ঔষধ আনকে তাদের দাদীকে মাইনুদÍীনের ঔষধের দোকানে পাঠানো হয়।

এই ফাকে দুই শিশুকে বিষ মিশ্রিত মিষ্টি খাওয়ানো হয়। দোকান থেকে দাদী ঔষধ নিয়ে আসার পর তাদেরকে আধা চামচ করে নাপা খাওয়ানো হয়। এরপরই তাদের মুখ দিয়ে লালা এবং বমি করতে থাকলে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
সিংক: মো: আনিসুর রহমান,পুলিশ সুপার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

ঘটনার পর রিমা তার প্রেমিক সফিউল্লাহর কথামতো মোবাইল ফোনটি সরিয়ে ফেললে স্বামী ইসমাইল সেটি কোথায় জানতে চায়। এরপরই বিষয়টি ধরা পড়ে।

সিংক: ইসমাইল হোসেন সুজন ,নিহত দুই শিশুর পিতা। নিহত দুই শিশুর স্বজন ও এলাকাবাসী এ হত্যাকান্ডের বিচার দাবী করেন। পুলিশ জানিয়েছে বাকী আসামীদের গ্রেফতাদের তাদের অভিযান চলছে।

সন্তোষ চন্দ্র/বার্তাবাজার/এম.এম

Leave a Reply

Your email address will not be published.