নড়াইলে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ

এবার নড়াইলে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে জেলা শিক্ষা অফিস। গত মঙ্গলবার ২৮ জুন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম ছায়েদুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সেই চিঠিতে বলা হয়েছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মোবাইল আনা নিষেধ থাকা সত্ত্বেও শিক্ষার্থীরা গোপনে ফোন আনছে। তারা ভালো-খারাপ বিবেচনা না করে বিভিন্ন ধরনের বিতর্কিত পোস্টে লাইক এবং শেয়ার দিয়ে বিব্রতকর ও উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে। ইতোমধ্যে নড়াইলের মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ও মির্জাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির একজন শিক্ষার্থী এ ধরনের পোস্ট দিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিবেশ সৃষ্টি করেছে।

ফলে প্রতিষ্ঠান দুটি সাময়িকভাবে বন্ধ রাখতে হয়েছে। এ অবস্থায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মোবাইল ব্যবহারের বিষয়টি কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য পরিস্থিতি বিবেচনায় নিম্নলিখিত নির্দেশনা অনুসরণ করার জন্য প্রতিষ্ঠান প্রধানদের অনুরোধ করা হলো। বিষয়গুলো হলো-

১. মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এবং কলেজ ও মাদরাসার দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের কোনোভাবেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মোবাইল আনা যাবে না।

২. মোবাইল না আনার নির্দেশনাটি কঠোরভাবে বাস্তবায়নের জন্য শিক্ষকদের তৎপর থাকতে হবে এবং প্রয়োজনে শিক্ষার্থীদের ব্যাগ চেক করা যেতে পারে।

৩. কোন শিক্ষার্থীর কাছে মোবাইল পাওয়া গেলে, মোবাইল নিয়ে নেওয়াসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৪. মোবাইল ফোনের ব্যবহার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে না আনার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য ঈদের ছুটির পর নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে অভিভাবক সমাবেশের আয়োজন করতে হবে।

শিক্ষা প্রশাসন ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শনকালে নির্দেশনাসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যবেক্ষণ করবেন। পরিদর্শনকালে কোনো শিক্ষার্থীর কাছে মোবাইল পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট সকলের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে অভিভাবক মিরাজুল খান বলেন, সরকারের সিদ্ধান্তে আমরা খুশি। ছেলে-মেয়েরা একটু বড় হওয়ার পর আমাদের অনিচ্ছা সত্ত্বেও তাদের স্মার্টফোন কিনে দিতে হয়। তারা স্কুল-কলেজ থেকে বাড়িতে এসে মোবাইল নিয়ে পড়ে থাকে। আমাদের সঙ্গে সন্তানদের একটা অলিখিত দূরত্ব তৈরি হচ্ছে ফোনের কারণে। শুধু স্কুল-কলেজ নয়, সরকারের উচিত দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত বাাড়িতেও মোবাইল ব্যবহার করতে পারবে না এমন আইন করা।

Python Tutorial Introduction

এ বিষয়ে নড়াইল ভিক্টোরিয়া কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রবিউল ইসলাম বলেন, দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ করা একটা যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত। স্মার্টফোন এবং ওয়াইফাই সংযোগসহ অনলাইন সংযোগের কারণে বিশেষ করে আমাদের কিশোর-কিশোরীরা এমন সব বিষয়ে আসক্ত হয়ে পড়ে যা সমাজকে বিনষ্ট করার অন্যতম কারণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.