নোয়াখালীতে ছিনতাইয়ের অভিযোগে আটক হওয়া ৩ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ছিনতাইয়ের অভিযোগে স্থানীয়দের হাতে আটক ফেনীর সোনাগাজী মডেল থানার তিন পুলিশ সদস্য এএসআই জহিরুল হক, কনস্টেবল আনোয়ার হোসেন ও কায়সার হামিদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ওই তিন পুলিশ সদস্য সোনাগাজী থানার আদর্শগ্রাম তদন্তকেন্দ্রে কর্মরত ছিলেন। যেটি কোম্পানিগঞ্জ সংলগ্ন এলাকা।

সোমবার (২৮ জানুয়ারি) দুপুরে তাদের প্রত্যাহারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ফেনীর পুলিশ সুপার (এসপি) আব্দুল্লাহ আল মামুন।

এর আগে ২৭ ফেব্রুয়ারি দিনগত রাত সাড়ে ১২ টায় ফেনীর সোনাগাজী মডেল থানার তিন পুলিশ সদস্যকে ছিনতাইয়ের অভিযোগে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আটক করে স্থানীয় জনতা। এ সময় তাদের কাছ থেকে দেড় লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে কোম্পানীগঞ্জের দেমুছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী বলেন, ‘এইদিন রাতে দোকান বন্ধ করে ছোট ধ্বলি গ্রামের ব্যবসায়ী শেখ ফরিদ বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় রাস্তার ওপর তিন পুলিশ সদস্য তাকে ইয়াবা কারবারি আখ্যা দিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে মারধর শুরু করেন। পরে ব্যবসায়ীর কাছে থাকা দেড় লাখ টাকার বান্ডিল ছিনিয়ে নিয়ে তাকে রাস্তার পাশে ফেলে দেন।’

পরে স্থানীয়রা তার চিৎকারে ছুটে এসে ধাওয়া করে অটোরিকশা সহ এই তিন পুলিশ সদস্যকে আটক করেন।

ফেনী জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দেবেন। তারপর বিভাগীয় ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কামরুল/বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.