নরসিংদীতে চাঞ্চল্যকর সুজিত সূত্রধর হত‍্যার মূল হোতাসহ গ্রেফতার ৩

নরসিংদী সদর উপজেলার হাজীপুরে সুজিত সূত্রধর (৫৫) নামের এক সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নরসিংদীর পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম এই তথ্য জানান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নিহত সুজিত সূত্রধরের দোকানের বার্নিশ মিস্ত্রী ও সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের বুদিয়ামারা গ্রামের হযরত আলীর ছেলে মো. মাসুম (২৬), একই গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে শিমুল মাহমুদ (২২) ও নবীপুর গ্রামের রহিম মিয়ার ছেলে সোহাগ মিয়া (২৩)।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম জানান, গত এক সপ্তাহ আগে নিহত সুজিত সূত্রধরের ছেলে সুজন সূত্রধরের সাথে তার দোকানের বার্নিশ মিস্ত্রী মাসুমের কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সুজন মাসুমকে থাপ্পর মারে। এই ঘটনার পর বুধবার রাত পোনে ৮টার দিকে বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য সুজিত সূত্রধর ও তার ছেলে সুজন সূত্রধর দোকানে অবস্থান করছিল। ওই সময় বার্নিশ মিস্ত্রী মাসুমের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২জনের একটি দল দোকানে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে সুজিত সূত্রধরের গলার বাম পাশেসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তাক্ত জখম করে। সেসময় বাঁচাতে এলে সুজন সূত্রধর ও কর্মচারী দীনাকে মারপিট করে তারা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুজিত সূত্রধরকে মৃত ঘোষণা করে। ঘটনার পর রাতেই ঘটনার সাথে জড়িত ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে জানা যায়, সুজিত সূত্রধরের সাথে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এর জায়গা, নির্বাচন সংক্রান্ত ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পূর্বে থেকে আনেকের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এই ঘটনার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

এর আগে বুধবার রাত পোনে ৮টার দিকে নরসিংদীর হাজীপুরে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সাবেক ইউপি সদস্য ও কাঠ ব্যবসায়ী সুজিত সূত্রধরকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ সময় আহত হন তার ছেলে সুজন সূত্রধর (২৭) ও ঘটনাস্থলে থাকা দ্বীন ইসলাম দীনা (৫৫) নামের আরও দুজন। নিহত সুজিত সূত্রধর হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ছিলেন।

রেজাউল করিম/বার্তাবাজার/জে আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.