টাঙ্গাইলে জল কাঁদায় মাছ ধরা উৎসব

গ্রাম-বাংলার পুকুর ও খালবিলে জল কাঁদায় মাছ ধরার উৎসব লেগেছে। টাঙ্গাইলের চারদিকে রয়েছে যমুনা-ধলেশ্বরী, ঝিনাই, বংশাইসহ একাধিক নদী। বর্ষা মৌসুমে উজান থেকে নেমে আসা ঢলে পানিতে টই-টম্বুর হয়ে উঠে এ সকল নদী। আর তখন এসব পুকুর ও খালবিল পানিতে ডুবে যায়। পুকুর ও খাল বিলে কৈ, শিং, মাগুর, টাকি , পুঁটি, চিংড়ি, টেংরা, শৌল, বোয়াল ছাড়াও নানা দেশীয় মাছ থাকে। শীতের শেষ থেকে ফাল্গুন মাস পর্যন্ত পুকুর ও খাল বিল মেশিন দিয়ে সেচে কাঁদায় মাছ ধরে গ্রামের মানুষ।

শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মেশিন দিয়ে পুকুর সেচে মাছ ধরছেন গ্রামের ছেলেরা। রোদে হাঁটু কাঁদায় মাছ ধরছেন তারা। মাছ ধরা দেখতে স্থানীয় লোকজন বসে আছেন। ছোট-বড় সবাই মাছ ধরা নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন।

কাঁদার মধ্যে মাছ ধরা সুজন পাল বলেন, ছোট সময় বিভিন্ন পুকুর ও খালবিলে মাছ ধরতাম। বাড়িতে থাকা হয় না। শখের বসে আজ নিজেদের পুকুরের মাছ ধরছি। আগের মতো মাছ নেই। দেশীয় মাছ আর এখন তেমন পাওয়া যায় না।

কাঁদার মধ্যে মাছ ধরা বিজয় সরকার বলেন, মাছ ধরা শখের বিষয়। ছোট সময় থেকেই মাছ ধরি।যদি শোনতাম এলাকার কোনো পুকুরের মাছ ধরা হবে ভোর থেকে পুকুর পাড়ে বসে থাকতাম। ভোর শেষে হলেই মাছ ধরতাম। যারা মাছ ধরতাম অনেক আনন্দ করতাম। যে পুকুরে মাছ ধরছি পুকুরের মাছ গুলো ভাগ করে নিবো।

মাছ ধরতে আসা অখিল পাল বলেন, দেখলাম পুকুরে মাছ ধরা হচ্ছে। কাঁদার মধ্যে মাছ ধরা দেখে নিজেও কাঁদার মধ্যে মাছ ধরতে নেমে পরলাম। অনেকেই আমার মতো মাছ ধরছে। ছোট সময় বন্ধুদের সাথে নিয়ে পুকুর ও খালবিলে মাছ ধরতে যেতাম। আগের মতো দেশীয় মাছ নেই।

হাসান/বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.