ঝিনাইদহ শৈলকুপায় ভোট পূর্ব রাস্তা সংস্কার করে মেম্বর প্রার্থীর চমক!

এম হাসান মুসা, ষ্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহের চোখ-

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী মামুনুর রশিদ নামের এক ব্যক্তি নিজের জমি বিক্রি করে স্বেচ্ছাশ্রমে ৪ কি. মি.রাস্তা সংস্কার করছেন । তিনি উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের খুলুমবাড়ি গ্রামের বসির মন্ডলের ছেলে ও একই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী।

সরেজমিনে দেখা যায়, ৭ নং হাকিমপুর ইউনিয়নের পৃর্ব মাদলা, পশ্চিম মাদলাও খুলুমবাড়িয়া ৩ গ্রাম নিয়ে ২নং ওয়ার্ড গঠিত । দীর্ঘ দিনধরে ২নং ওয়ার্ডের রাস্তাটি বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় তিনি নিজ উদ্যোগে এই ওয়ার্ডের রাস্তাটি সংস্কার করেন বর্তমানে কয়েক হাজার লোকের বসবাস এই ওয়ার্ডে। কাঁদা পানিতে ভরে আছে রাস্তার গর্তগুলো। বর্ষা মৌসুমতো দুরের কথা শীত মৌসুমেও চলাচলের অযোগ্য এ ওয়ার্ডের রাস্তাগুলো। সাধারণ মানুষের কষ্টের শেষ নেই তাই তিনি বালি এবং ইট দিয়ে রাস্তা সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করে তুলছেন । বালু আর ইট কিনে মালামাল নিজ গাড়িতে বহন করে রাস্তা সংস্কার করছেন। তিনি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর থেকেই তার ওয়ার্ডে চলাচলের অযোগ্য রাস্তা সংস্কারের কাজ নিজেই করছেন। নিজ উদ্যোগে জমি বিক্রির টাকা দিয়ে তার ওয়ার্ডের ৪ কিলোমিটার রাস্তা সংস্কার করছেন।

এব্যাপারে মেম্বার প্রার্থী মামুনুর রশিদ জানান, জনগণের দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে বাবার নিজ নামীয় ২০ শতক জমি বিক্রি করে রাস্তা সংস্কারের কাজ করছি। ভোটে প্রার্থী হয়েছি নির্বাচিত হই আর না হই সব সময় জনগনের পাশে থেকে সেবা করে যেতে চাই।

মাদলা গ্রামের আবু দাউদ জানান আমরা দেখেছি মেম্বাররা সাধারণত নির্বাচনের আগে প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে এবং নির্বাচিত হওয়াার পরে তাদের আর দেখা পাওয়া যায় না কিন্তু মামুন নির্বাচিত হওয়ার পূর্বে নিজ উদ্যোগে তিনি চলাচলের অনুপযোগী রাস্তাগুলোকে চলাচলের উপযোগী করে তুলেছেন। তিনি নির্বাচিত হলে এর থেকে আরো ভালো কাজ করবেন বলে আমি আশাবাদী।

আইয়ুব হোসেন নামে আরেক মেম্বার প্রার্থী বলেন, মামুনের এমন কাজকে আমি সাধুবাদ জানাই। যে জনগণের খেদমতে কাজ করবে আমি সর্বদাই তার পাশে থাকবো।

The post ঝিনাইদহ শৈলকুপায় ভোট পূর্ব রাস্তা সংস্কার করে মেম্বর প্রার্থীর চমক! appeared first on Jhenidaherchokh.

Leave a Reply

Your email address will not be published.