ঝিনাইদহে বিলুপ্তপ্রায় মেছোবাঘ আটক

স্টাফ রিপোর্টারঃ
ঝিনাইদহের বিলুপ্তপ্রায় এক মেছোবাঘ আটক করেছে গ্রামবাসী। বুধবার দুপুরে জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কোলা ইউনিয়নের তেঘরীহুদা গ্রামের মাঠ থেকে স্থানীয় কৃষকরা মেছো বাঘটি আটক করে। সেসময় তাদের পিটুনিতে মরনাপন্ন হয়ে যায় প্রাণীটি।
বর্তমানে মেছোবাঘটি ওই গ্রামের নমির উদ্দীনের বাড়ি আটকে রাখা হয়েছে। পরে স্থানীয় কোলা পুলিশ ফাড়িতে সংবাদ দিলেও তারা বাঘটি উদ্ধার করেনি। এরপর জানানো হয় বন বিভাগকে।
স্থানীয় স্কুল শিক্ষক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, গত কয়েক মাস ধরেই রাতে গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে মৃত ছাগল পাওয়া যাচ্ছিল। ছাগলের সবগুলোই গলা কাটা বা কোন প্রাণীর কামড়ের চিহ্ন ছিল। মএসব ঘটনার পর এলাকার কৃষকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এরপর বুধবার মাঠে মেছোবাঘটি পাওয়া যাওয়ার পর গ্রামের সবার ধারনা হয়তো এই বাঘটিই এসব ছাগলগুলো মেরে ফেলতো।
তেঘরিহুদা গ্রামের জামির হোসেন নামের এক কৃষক জানান, গ্রামের পাশে বিলের মধ্যে একটি পুকুরের পাশে মেছোবাঘটি ছিল। মাঠের কৃষকরা দেখতে পেয়ে তাড়া করে। ভয়ে বাঘটি বিলের পানিরে মধ্যে লাফ দেয় এসময় তারা তাকে পিটিয়ে আহত করে আটক করে গ্রামে নিয়ে আনে।
কোলা পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ জীবন কুমার জানান, আমরা শুনেছি, তবে ওটি মেছোবাঘ না, স্থানীয় ভাষায় খাটাস বলে। বিষয়টি বনবিভাগ দেখবে বলে যোগ করেন।
এ বিষয়ে ঝিনাইদহ জোনের সহকারী বন সংরক্ষক এএফজি মোস্তফা জানান, কোটচাঁদপুর থেকে বন বিভাগের কর্মকর্তাকে ঘটনা স্থলে পাঠানো হচ্ছে। সন্ধ্যার পরপরই সেখানে গিয়ে মেছো বাঘটিকে উদ্ধার করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হবে। ইতোমধ্যেই খুলনা বন্য প্রাণী সংরক্ষণ বিভাগকে জানানো হয়েছে। মুলত তারাই বণ্য প্রাণী সংরক্ষণের বিষয়টি দেখভাল করেন।
এই বন কর্মকর্তা আরো জানান, স্থানীযভাবে এটি মেছো বাঘ নামে পরিচিত হলে মুলত এগুলোকে মেছো বিড়াল বলে। প্রার্ণীগুলি সাধারনত বিভিন্ন বনে ও ঝোপঝাড়ে থকে। খাল-বিলের মাছ খেয়ে বেঁচে থাকে। কিন্তু বর্তমান সময়ে তাদের আবাস স্থল কমে যাওয়া ও খাবার সংকটে লোকালয়ে চলে আসে এবং মানুষের হাতে আটক হয়ে নানা সংকটের মুখে পড়েছে। তাদের খাবার ও আবাস স্থল যদি বাড়ানো যায় তাহলে হয়তো তারা লোকালয়ে আসবে না এবং নিরাপদে বিচরণ করতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.