ঝিনাইদহে বাল্য বিয়ে পন্ড/পিতাকে অর্থদন্ড

এইচ মাহবুব মিলু, ষ্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহের চোখ-
ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডে দশম শ্রেণীর এক ছাত্রী বাল্য বিবাহের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেয়েছে। আজ দুপুরে উপজেলার তাহেরহুদা ইউনিয়নের রামনগর গ্রামে নিজ বাড়ীতে হঠাৎ উপস্থিত হয়ে বিয়ের সকল অনুষ্ঠানিকতা বন্ধ করে দেন হরিণাকুন্ড উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আহমেদ।

জানাযায়, হরিণাকুন্ড উপজেলা হাজী আরশাদ আলী মাদ্রাসার দশম শ্রেণীর ছাত্রী নাবালিকা মেয়েয়ে বিয়ে দেওয়া হচ্ছে এমন সংবাদরে ভিত্তিতে স্বশরীরে উপস্থিত হন উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট সেলিম আহমেদ। পরে নাবালিকা মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে মেয়ের পিতাকে পাঁচ হাজার (৫০০০/-) হাজার টাকা জরিমানা করেন।

উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আহমেদ জানান, কনে সাবালিকা না হওয়ায় বিয়ের সকল আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ করা হয়েছে। এবং বাল্য বিবাহ থেকে বিরত থাকবেন মর্মে মেয়ের অভিভাবকের মুচলেকা আদায় করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার কাজে হরিণাকুন্ড থানা ও ফাড়ী পুলিশ সহায়তা করে। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় বর পক্ষ বিয়ের অনুষ্ঠানে আসেনি।

The post ঝিনাইদহে বাল্য বিয়ে পন্ড/পিতাকে অর্থদন্ড appeared first on Jhenidaherchokh.

Leave a Reply

Your email address will not be published.