জমি দখলে বাঁধা দেয়ায় বিধবাকে সন্ত্রাসী কায়দায় মারধর

কক্সবাজারের রামু খুনিয়া পালং এলাকায় জমি বিরোধের জের ধরে পঞ্চাশোর্ধ এক বিধবাকে সন্ত্রাসী কায়দায় মারধরের অভিযোগ উঠেছে। আহত মহিলাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতবার (২৩ জুন) রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়নের ধোয়াপালং ঘোনার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার বেশ কিছু ভিডিও সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়েছে।

অভিযুক্তরা হলেন, খুনিয়াপালং নয়াপাড়া এলাকা ওসমান গনির ছেলে আব্দুল আজিজ, বকসু মিয়ার ছেলেওসমান গণি, আব্দুর রহিম বৈদ্যের ছেলে আবু বক্কর ছিদ্দিক ও মাহাত সিদ্দিক, নুরুল ইসলামের ছেলে ডাকাত আবদুর করিম।

এদের মধ্যে আবু বক্করের বিরুদ্ধে রামু থান মামলা নং- ৪/৭৪৭-২০২১ ইং, আব্দুল আজিজের বিরুদ্ধে রামু থানা মামলা নং- ১৩/২০১-২০২১ ইং পৃথক দুটি মামলা রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে রামু থানা।

অভিযোগের সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত ব্যক্তিদের সাথে খুনিয়াপালং ইউনিয়নের মৃত আব্দুল গফুরের স্ত্রী খতিজা বেগম (৫২) ও তার পরিবারের সাথে দ্বীর্ঘ দিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। অভিযুক্তদের বিরদ্ধে ইতিপূর্বে বিধবার জমি জবর দখলের ঘটনায় স্থানীয় ভাবে শালিসের অভিযোগ রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজের জমি পরিচর্যা করতে গেলে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা দলবল নিয়ে অতর্কিত ভাবে সন্ত্রাসী কায়দায় খদিজা বেগমকে মারধর করে মারাত্বক ভাবে আহত করে। এই ঘটনায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ওই এলাকার ইউপি সদস্য হামিদুল হক জানান, তাদের মধ্যে পূর্বেথেকেই জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। এই ঘটনার জের ধরে মহিলাক মাধরের বিষয়টি শুনেছি।

এদিকে, অভিযুক্ত উসমান গনির বোনকে আহত সাজিয়ে গতকাল শুক্রবার উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়ে মিথ্যা মামলা সাজানোর পায়তারা করছে বলে অভিযোগ করেন হামলার শিকার বিধবা খতিজা।

রামু থানার ওসি আনোয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বার্তা বাজারকে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তা মামলা আকারে গ্রহণ করা হবে।

বার্তাবাজার/এ.আর

Python Tutorial Introduction

Leave a Reply

Your email address will not be published.