কুড়িগ্রামে কলেজ শিক্ষকের আত্মহত্যা

বিজয় দিবসে কলেজে শহীদ বেদীতে জুতা পায়ে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর সময় কলেজের কর্মচারীদের হাতে মারধরের শিকার হন কলেজ শিক্ষক আবু তাহের(৫৫)। এরপর তার নামে মামলা হয় পরবর্তীতে শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে তাকে বদলী করা হয় জয়পুরহাট পাঁচবিবি কলেজে।

দীর্ঘদিনের আত্মসম্মানে হানি আর হতাশাগ্রস্থ থেকে বাঁচতে অবশেষে আত্মহত্যা করলেন জয়পুরহাট পাঁচবিবি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আবু তাহের। বুধবার(৯ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে কুড়িগ্রাম জেলা শহরের হিঙ্গন রায় গোরস্থান পাড়া এলাকায় নিজ বাড়ির ২য় তলা গলায় ফাঁস ঝুলিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন ।

আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেন কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি খাঁন মোহাম্মদ শাহরিয়ার।

পুলিশ ও স্থানীয়সুত্রে জানা যায়,মৃত  আবু তাহের ২০১৯ সাল পর্যন্ত কুড়িগ্রামের উলিপুর সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এরপর ২০১৯ সালে বিজয় দিবসের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে শহীদ বেদীতে জুতা পায়ে উঠেন। সেই সময় স্থানীয় জনতা বিক্ষুদ্ধ হয়ে তাকে মারধর করেন ।

পরে কলেজের কর্মচারীরা বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন । দীর্ঘদিনের আত্মসম্মান হানি ও হতাশাগ্রস্থ থেকে তিনি সকালে নিজ বাসার ২য় তলায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন । তার স্ত্রী স্কুল শিক্ষক নাদিরা বেগম সকালে ৪ তলা থেকে নিচে গাছে পানি দেয়ার সময় ২য় তলায় তার স্বামীকে সিলিং ফ্যানে রডে ঝুলতে দেখে আত্মচিৎকার করলে বিষয়টি জানা-জানি হয় । পরে পুলিশ গিয়ে মৃতের ঝুলন্ত লাশটি নিচে নামান ।

মৃত কলেজ শিক্ষকের স্ত্রী নাদিরা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন,’আমার স্বামী দীর্ঘদিন ধরে কলেজের শিক্ষকতা করে । তিনি ভালো মানুষ । তার কলেজের কর্মচারিরা কয়েকদিন থেকে তাকে ফোন করে । তার মামলা নিয়ে সে মানসিক দুঃচিন্তা করছিলো। সকালে নামাজ পড়ে,হাঁটতে বের হলো। আমি ২য় তলায় ফাঁকা ঘরে গিয়ে দেখি সে গলায় ফাঁস দিছে।’

এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি খাঁন মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন,’ কলেজ শিক্ষকের আত্মহত্যার বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি । ঘটনাস্থলে পুলিশের সদস্যরা রয়েছে । বিস্তারিত তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে ।’

সুজন/বার্তাবাজার/এ.আর

Leave a Reply

Your email address will not be published.