কালীগঞ্জে চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়নপত্র ছিনতাই করে বেধড়ক মারপিট

আসিফ কাজল, ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে জয়নাল আবেদীন নামে এক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর
মনোনয়ন পত্র ছিনতাই করে বেধড়ক মারপিট করার অভিযোগ উঠেছে। তার মুখমন্ডল রক্তাক্ত
হয়েছে। তিনি বর্তমানে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
এ সময় কামরুল নামে সাবেক চেয়ারম্যানের এক সহযোগীকেও মারধর করা হয়েছে।
জয়নাল আবেদীন কালীগঞ্জ উপজেলার পিরোজপুর গ্রামের দুঃখী মাহমুদের ছেলে ও ৯নং
বারবাজার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান। আহত জয়নাল আবেদীন জানান, তিনি
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কালীগঞ্জ উপজেলার ৯নং বারাবাজার ইউনিয়ন
পরিষদে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। সোমবার বিকেলে মোটরসাইকেলে
কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদে মনোনয়নপত্র জমা দিতে যাচ্ছিলাম। তিনি অভিযোগ করেন,
কালীগঞ্জ উপজেলা গেটের সামনে পৌঁছালে বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম
আজাদের নেতৃত্বে সুমন, সোহাগ, শাহারুল, আরিফসহ কয়েকজন যুবক তাকে
গতিরোধ করে। এরপরই বেদম মারধর শুরু করে। এ সময় তারা পকেটে থাকা ১৪ হাজার টাকা
ও মনোনয়নপত্রসহ সকল কাগজপত্র ছিনিয়ে নেয়। তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও
জেলা নির্বাচন অফিসারের কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবী করেছেন। বিষয়টি
নিয়ে বারাবাজার ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান নৌকা প্রতিকের প্রর্থী আবুল কালাম
অভিযোগ অস্বীকার করে মুঠোফোনে বলেন, আমি বিকালে নিজের মেনায়নপত্র জমা
দিয়ে চলে এসেছি। গ্যঞ্জাম হবে বলে কোন শো ডাউন পর্যন্ত করিনি। এ বিষয়ে
আমি কিছুই জানি না। তিনি বলেন জয়নাল আবেদীন আমাকে জড়িয়ে যে
অভিযোগ করেছে তা মিথ্যা। কথার বলার এক পর্যায়ে তিনি বলেন, তবে বিএনপিরা
তাকে মারতে পারে। আমার সঙ্গে জয়নালের দেখাই হয়নি। কালীগঞ্জ থানার ওসি মুহা:
মাহফুজুর রহমান জানান, এখনো এ ব্যাপারে কোন অভিযোগ পাইনি। লিখিত
অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নিবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.