‘করোনার টিকায় ব্যয় ৪০ হাজার কোটি টাকা’

দেশে এ পর্যন্ত টিকা কিনতে ও টিকা কার্যক্রম চালাতে মোট ৪০ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, দেশে প্রায় ২২ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) রাজধানীর জাতীয় কিডনি ইনস্টিটিউটে বিশ্ব কিডনি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান।

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশ এখন বিশ্বের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘একদিনে এক কোটির বেশি ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। অল্প সময়ে ২২ কোটি ডোজ টিকা দিয়ে করোনা মহামারি থেকে দেশকে রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা একদিনেই ১ কোটি ২০ লাখ ডোজ টিকা দিয়েছি, যা একটি রেকর্ড। আমরা এ পর্যন্ত প্রায় ২২ কোটি ডোজ টিকা দিতে সক্ষম হয়েছি। এর মধ্যে সাড়ে ১ম ডোজ ১২ কোটি, ২য় ডোজ সাড়ে ৮ কোটি এবং ৫০ লাখ বুস্টার ডোজ দিতে সক্ষম হয়েছি। এই টিকাদান কর্মসূচিতে লক্ষাধিক লোক কাজ করছেন।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘করোনায় বিশ্বের অনেক দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা যখন ভয়াবহ তখন বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আবার ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। জিডিপি ৬ প্লাস হয়েছে। মানুষ এখন নিশ্চিন্তে আবার ব্যবসা-বাণিজ্যে মন দিতে পারছে। এগুলো এমনি এমনি হয়নি। এর জন্য স্বাস্থ্যখাতকে দিনরাত কাজ করতে হয়েছে।’
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজির পরিচালক মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন-স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব সাইফুল ইসলাম বাদল, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এ বি এম খুরশিদ আলম, নেফ্রলজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. নিতাই চন্দ্র বিশ্বাস প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.