সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

পুলিশ পরিচয়ে কক্সবাজার আদালত পাড়া থেকে নারীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামিসহ তিনজনকে দশটি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। তবে মামলার দুই নম্বর আসামী পুলিশ পরিচয়দানকারী মো.রাসেল এখনো অধরা।

শনিবার (২৬ মার্চ) ভোরে উপজেলার ইদগাঁও ইউনিয়নের নাপিতখালী থেকে একটি বিদেশী পিস্তল ও ৯ টি দেশীয় তৈরি অস্ত্রসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- ঈদগাও রমজান আলী মেম্বারের ছেলে ফিরোজ আহমদ (৪৭) উরুফে মোস্তাক ডাকাত, একই এলাকার লোদা মিয়ার ছেলে নুরুল ইসলাম এবং ঈদগাঁও ইসলামপুর ইউনিয়নের ফকিরা বাজার এলাকার মৃত আব্দুল গণির ছেলে মো. শরীফ প্রকাশ শরীফ কোম্পানি। আটককৃত ফিরোজ ও শরীফ উপজেলার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও প্রায় ডজন মামলার পালাতক আসামি বলে জানিয়েছে র‍্যাব।

র‍্যাব-১৫ অধিনায়ক লে. কর্ণেল খায়রুল ইসলাম সরকার আজ দুপুরে কক্সবাজার র‍্যাব কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, শনিবার ভোররাতে ঈদগাঁও উপজেলার নাপিতখালী এলাকা থেকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলার তিন আসামি গ্রেপ্তার করা হয়। পরবর্তীতে তাদের আস্তানা থেকে মাটি খুড়ে একটি বিদেশী পিস্তল, ৯টি দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তার তিনজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, ডাকাতি, চাঁদাবাজি ও বন দখলের একাধিক মামলা রয়েছে।

আইনী প্রক্রিয়া শেষে আটককৃতদের ঈদগাও থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, গেলো ১৪ মার্চ কক্সবাজারের আদালত চত্বর থেকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ তুলে এজাহার নামীয় চার জনসহ মোট ৯ জনের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়ের করেন ঘটনার শিকার ওই নারী। মামলায় আটককৃত ৩ জনের নাম রয়েছে।

বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.