ইবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি মিজানুর, সম্পাদক জাহাঙ্গীর

ইবি প্রতিনিধি ||

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। ফলাফল ঘোষণা শেষে বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের আধিপত্য লক্ষ্য করা গেছে। ১৭৪ ভোট পেয়ে বিএনপি-জামাত পন্থী শিক্ষকদে প্যানেল থেকে হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের প্রফেসর ড. মিজানুর রহমান সভাপতি এবং ১৮৬ ভোট পেয়ে আওয়ামী পন্থী শিক্ষকদের সংগঠন শাপলা ফোরামের প্যানেল থেকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন নির্বাচিন হয়েছেন।

রবিবার (১২ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯ টা থেকে ভোট প্রদান শুরু হয়। যা বিরতিহীনভাবে চলে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত। পরে রাত আটটার দিকে ভোট গণনা শেষে নির্বাচন কমিশন ফলাফল ঘোষণা করে। এতে ৩৯০টি ভোটের মধ্যে তিনটি ভোট বাতিল হয়। নির্বাচনে মোট ভোট প্রদান করে ৩৪৬ জন শিক্ষক।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, ১৬৬ ভোট পেয়ে শাপলা ফোরাম থেকে সহ-সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক, ১৫৩ ভোট পেয়ে জামায়াত পন্থী শিক্ষকদের সংগঠন গ্রিন ফোরাম থেকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ড. মিজানুর রহমান, ১৬৫ ভোট পেয়ে কোষাধ্যক্ষ পদে জামাতপন্থী শিক্ষক প্রফেসর ড. আব্দুল বারী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এদিকে সদস্য হিসেবে বিএনপি-জামাত পন্থী নির্বাচিত শিক্ষকরা হলেন, প্রফেসর ড. শাহিনুজ্জামান (১৭৩), প্রফেসর ড. আব্দুস শাহীদ মিয়া (১৬৯), প্রফেসর ড. খোদেজা খাতুন (১৬৮), প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম (১৬৭), প্রফেসর ড. গাজী মো. আরিফুজ্জামান খান (১৬৬), প্রফেসর ড. নুরুন্নাহার (১৬৫), প্রফেসর ড. জাহিদুল ইসলাম (১৬২), আওয়ামী পন্থী শিক্ষকদের শাপলা ফোরাম প্যানেল থেকে মাহবুবুল আরফীন (১৭১), প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন (১৬৪), প্রফেসর ড. শামসুল আলম (১৬১) ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া বিএনপি পন্থী শিক্ষকদের একাংশের শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দলের একজনও নির্বাচিত হয়নি বলে জানা গেছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার প্রফেসর ড. আবদুস সোবহান জানান, ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। কোনো ধরনের কোনো অভিযোগ আসেনি।’

নবনির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষকগন আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন, এজন্য আমি কৃতজ্ঞতা পোষণ করছি। আগামীদিনগুলো শিক্ষকদের কল্যানে কাজ করতে চাই। এজন্য নির্বাচিত সকল সদস্যদের সহযোগিতা কামনা করছি।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.