ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়ে আসা শরণার্থী প্রায় ২৭ লাখ

রাশিয়ার আগ্রাসন শুরুর (২৪ ফেব্রুয়ারি) পর থেকে ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়ে আসা শরণার্থীর সংখ্যা এখন প্রায় ২৭ লাখ। রবিবার (১৩ মার্চ) জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশন (ইউএনএইচসিআর) এ তথ্য জানায়।

বাংলাদেশে সময় রোববার বিকেল ৫টার দিকে ইউএনএইচসিআর জানায়, এখন পর্যন্ত ইউক্রেন থেকে পালিয়ে আসা শরণার্থীর সংখ্যা ২৬ লাখ ৯৮ হাজার ২৮০ জন। শনিবারের পরিসংখ্যানের তুলনায় এই সংখ্যাটি ১ লাখ ৭০০ জন বেশি।

জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডির মতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এটিই ইউরোপে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষের শরণার্থী হিসেবে দেশত্যাগের ঘটনা।

জাতিসংঘের প্রাথমিক অনুমান অনুযায়ী ৪০ লাখ মানুষ যুদ্ধ থেকে পালাতে ইউক্রেন ছেড়ে যেতে পারে।

রাশিয়ার দখলকৃত ক্রিমিয়া এবং পূর্বে রাশিয়াপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদী অঞ্চলগুলো বাদ দিয়ে ইউক্রেনের সরকার নিয়ন্ত্রণাধীন অঞ্চলগুলোতে প্রায় ৩ কোটি ৭০ লাখ জনসংখ্যা ছিল।

ইউএনএইচসিআরের তথ্য অনুযায়ী, পোল্যান্ড অর্ধেকেরও বেশি ইউক্রেনীয় শরণার্থীকে আশ্রয় দিচ্ছে। আক্রমণের পর থেকে ১৬ লাখ ৫৫ হাজার ৫০৩ জন দেশটিতে প্রবেশ করেছে।

হাঙ্গেরি ১২ মার্চ পর্যন্ত ২ লাখ ৪৬ হাজার ২০৬ জন শরণার্থী গ্রহণ করেছে। অন্যদিকে, মোট ১ লাখ ৯৫ হাজার ৯৮০ জন ইউক্রেন থেকে স্লোভাকিয়ায় প্রবেশ করেছে বলে জানায় জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থাটি।

১০ মার্চ পর্যন্ত ইউক্রেন থেকে ১ লাখ ৬ হাজার মানুষ রাশিয়ায় আশ্রয় চেয়েছে। ইউএনএইচসিআর জানায়, ১৮ থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে পূর্ব ইউক্রেনের রুশপন্থী দোনেৎস্ক এবং লুহানস্ক অঞ্চল থেকে ৯৬ হাজার মানুষ রাশিয়ায় প্রবেশ করেছে।

মলদোভায় বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১ লাখ ৪ হাজার ৯২৯ জন শরণার্থীর প্রবেশ করেছে বলে জানায় ইউএনএইচসিআর।

ইউএনএইচসিআর জানায়, ৮ মার্চ পর্যন্ত রোমানিয়ায় ৮৫ হাজার শরণার্থী প্রবেশের তথ্য রেকর্ড করা হয়েছে। তবে রোমানিয়ান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৫৪২ জন লোক দেশটিতে প্রবেশ করেছে।

ইউএনএইচসিআর জানায়, ১১ মার্চ পর্যন্ত ইউক্রেন ছেড়ে প্রায় ৩ লাখ ৪ হাজার মানুষ ইউরোপের অন্যান্য দেশেগুলোতে প্রবেশ করেছে।

বার্তাবাজার/জে আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.