October 3, 2022

চলমান ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধে শক্তিশালী রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধের জন্য বিভিন্ন দেশের কাছে সামরিক সহায়তা চেয়েছিলো ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি। সেই আহ্বানে এগিয়ে এসেছে জার্মান। দেশটি থেকে বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগানের বড় ধরনের একটি চালান পৌঁছেছে ইউক্রেনে। যেখানে দেড় হাজার স্ট্রেলা বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র এবং ১০০টি এমজি৩ মেশিনগান রয়েছে। ইউক্রেনের সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জার্মান প্রেস এজেন্সি এ খবর জানিয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, জার্মানির নীতি রয়েছে বিরোধপূর্ণ অঞ্চলে অস্ত্র না পাঠানোর। তবে ইউক্রেনে রাশিয়ার অভিযানের ঘটনায় নিজের ঐতিহাসিক নীতির বিপরীত পথে হাঁটলো দেশটি।

জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবক বলেছেন, চলমান এই পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের সবচেয়ে বড় অস্ত্র সরবরাহকারীদের একটি জার্মান। তিনি বলেন, তবে এ নিয়ে গর্ব না করে ইউক্রেনের সহায়তায় কাজ করে যেতে হবে।

এর আগে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, রাশিয়া থেকে দূরে থাকতে জার্মানি নতুন পথ খুঁজছে।

তিনি বলেন, আমরা দেখেছি কয়েক দশক ধরেই অর্থনীতির জন্য জার্মানি লড়াই করছে। নতুন রুশ গ্যাস পাইপলাইন এবং পুরনো ইউরোপীয় স্বপ্নের জন্য তারা লড়াই করছে। এই ধরনের সহযোগিতার স্বপ্ন রাশিয়া দীর্ঘ সময় ধরে গুরুত্ব সহকারে নেয়নি। তবে আমরা দেখতে পাচ্ছি জার্মানদের মত বদলাচ্ছে। আর এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দেখতে পাচ্ছি জার্মানি নতুন পথ খুঁজছে।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার পর থেকে ব্যবসা, বাণিজ্য এবং জ্বালানি সংযোগ ব্যবহার করে পশ্চিমের কাছে রাশিয়ার সাথে শান্তিপূর্ণ সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করছে জার্মানি। তবে ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনে সেই সব আশার আপাত ইতি ঘটেছে। অন্য অঞ্চলে জরুরিভাবে বাণিজ্য সুবিধা খুঁজতে শুরু করেছে বার্লিন। সূত্র: বিবিসি।

বার্তাবাজার/না. সা

Leave a Reply

Your email address will not be published.