ইউক্রেনে নিহত নাবিকের বাড়িতে শোকের মাতম

ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরের জলসীমায় আটকে থাকা বাংলাদেশি জাহাজ ‘এমভি বাংলার সমৃদ্ধি’তে রকেট হামলায় নিহত হয়েছেন জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার মো. হাদিসুর রহমান (২৯)।

বুধবার রাতে স্বজনদের সাথে কথা বলার জন্য ৯.২৫ মিনিটে ইউক্রেনের কৃষ্ণ সাগরের অলভিয়া বন্দরে আটকে পরা জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধির ব্রীজের উপর আসে বরগুনার বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের বড় ছেলে নাবিক হাদিসুর রহমান। এসময় ব্রীজের উপর রকেট হামলায় ঘটনাস্থলেই নিহত হয় হাদিস।

রাত ১০টার দিকে জাহাজের আরেক নাবিক বাড়িতে হাদিসের ছোট ভাই তারেকের কাছে মোবাইল ফোনে নিহতের খবর জানান। এরপর থেকেই স্বজনদের কান্নায় ভেঙে পরে স্বজনরা। স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে বেতাগীর আকাশ।

ছেলে হারানোর বেদনায় বাকরুদ্ধ বাবা, আর পাগলপ্রায় মা বলছেন, যে কোনো কিছুর বিনিময়ে চান সন্তানের মৃতদেহ।

পরিবারের একমাত্র উপার্জনাক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে অসহায় হয়ে পরেছে হাদিসের ভাই-বোন। অর্ধাহার-অনাহারে থাকতে রাজি জানিয়ে যে কোনো কিছুর বিনিময়ে তারাও চাইছেন ভাইয়ের মৃতদেহ।

এদিকে হাদিসুরের বাড়িতে স্বজনদের শান্তনা দিতে এসে বেতাগী উপজেলা চেয়ারম্যান জানান, প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে ইউক্রেন থেকে মৃতদেহ আনার ব্যবস্থা করবেন তারা।

পৌর মেয়র এবিএম গোলাম কোবিত বলেন, হাদিসুর রহমান এর লাশ যাতে বাংলাদেশে তার স্বজনরা ফিরে পেতে পারে সে ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানান।

হাদিসুর রহমান ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং এ যোগ দেয়। তার বাবা আব্দুর রাজ্জাক একজন প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক। ৩ ভাই ১ বোনের মধ্যে সে হচ্ছে মেজ।

মেহেদী/বার্তাবাজার/এ.আর

Leave a Reply

Your email address will not be published.