সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২

নেত্রকোনার পূর্বধলায় হেলিকপ্টারে করে নববধূকে শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে যেতে এসেছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার মো. শাহ্জালাল। কিন্তু প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীর বিবাহ বন্ধ হয়ে গেছে।

জানা গেছে, কিছুদিন আগে উপজেলার কান্দাপাড়া গ্রামের ইতালি ফেরত প্রবাসী বাবুল তালুকদার ও মা দুবাই প্রবাসী সুমী আক্তারের মেয়ের সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরের মো. আলেক মিয়ার ছেলে মো. শাহ্জালালের সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ের ঠিক হয়।

খবর পেয়ে আজ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন ইউএনও। এসময় পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শিবিরুল ইসলাম, সদর ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান বুলবুলসহ থানা পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

হেলিকপ্টারে বর এর সঙ্গে তিনজন আত্মীয় ছিলেন। অন্য বরযাত্রীরা সড়ক পথে গাড়িতে করে আসেন। শত শত গ্রামবাসী ওই হেলিকপ্টার উঠানামা ও বর দেখতে সেখানে ভিড় করেন। উৎসুক জনতার ভিড় ঠেকাতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ জাহিদ হাসান প্রিন্স জানান, মেয়ে অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় আপাতত বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পর বিবাহ সম্পন্ন করবে এই মর্মে মেয়ের মায়ের কাছ থেকে মুচলিকা গ্রহণ করা হয়েছে।

 

রাজেশ গৌড়/বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.