October 1, 2022

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দাবি করছে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান আরো জোরদার করতে সিরিয়ার যোদ্ধাসহ আরো অন্যান্য যোদ্ধা নিয়োগ করছে রাশিয়া।

দশ বছরেরও বেশি সময় ধরে সিরিয়ার বিভিন্ন উপশহরে গৃহযুদ্ধ চলছেই। ২০১৫ সালে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের পক্ষ নিয়ে এই যুদ্ধে জড়ায় রাশিয়া।

এদিকে, মার্কিন গণমাধ্যম ‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’ এর প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, মার্কিন প্রতিরক্ষা সদর দফতর পেন্টাগনের কর্মকর্তারা বলেছেন, রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ওই সব যোদ্ধাদের ইউক্রেনে মোতায়েনের মিশনে আছেন। পুতিন চাচ্ছেন সিরীয় যোদ্ধাদের ইউক্রেন অভিযানে যুক্ত করতে।

এ বিষয়ে চাইলে পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, “আমরা মনে করি রাশিয়ানদের হিসাব-নিকাশ হচ্ছে-সিরিয়ার যোদ্ধাদের ইউক্রেনে তাদের বাহিনীর সাথে যুক্ত করে আরো শক্তি বৃদ্ধির পাঁয়তারা করছে তারা। আমরা মনে করি এর যথেষ্ঠ সত্যতা রয়েছে।”

রাশিয়ার দাবি, ইউক্রেনের তাদের সামরিক অভিযানের অর্থ যুদ্ধ নয়। বরং বিশ্বব্যাপী একটি সম্ভাব্য যুদ্ধ প্রতিহত করার লক্ষ্যে এই অভিযান চালানো হচ্ছে। পুতিন বলেছেন, ইউক্রেনকে নাৎসিমুক্ত করা, দেশটির নিরস্ত্রিকরণ ও ন্যাটো জোটে ইউক্রেনের অন্তর্ভুক্তি প্রতিহত করার জন্য তিনি এই অভিযান চালাচ্ছেন। সূত্র: আল-জাজিরা

বার্তাবাজার/এম আই

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.