October 1, 2022

রাজধানীর ভাটারা থানা এলাকায় মধ্যযুগীয় কায়দায় মোছা. লিজা আক্তার (১৪) নামে এক গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গৃহকর্তা এজাজ সাকলাইন ও গৃহকর্ত্রী তানজিমা হাসেমকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যায় অসুস্থ অবস্থায় গৃহকর্মীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে আনা হয়।

ভাটারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাজেদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

তিনি বলেন, এজাজ সাকলাইনের বাসায় গৃহকর্মী হিসবে কাজ করত লিজা আক্তার। এজাজ ও তার স্ত্রী লিজাকে মারপিট করতেন। গত বুধবার (২ মার্চ) তারা লোহার খুন্তি গরম করে লিজার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছ্যাকা দেন। পরে লিজা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে আমরা লিজাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে পাঠাই। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে। এ ঘটনায় বাসার মালিক এজাজ ও তার স্ত্রীকে আটক করা হয়েছে। একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন।

অসুস্থ লিজাকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসা ভাটারা থানার উপ-পরিদর্শক এসআই হাসান মাসুদ বলেন, বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে প্রতিবেশীরা জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ খবর দেন। খবর পেয়ে আমরা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ৪ নম্বর রোডের ডি-ব্লকের ১৯৩ নম্বর বাসায় যাই। সেখানে লিজাকে বাথরুমে আটকে রাখা হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, মেয়েটিকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। এভাবে কোনো মানুষকে মানুষ নির্যাতন করতে পারে না। মেয়েটির বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা এলাকায়।

বার্তাবাজার/জে আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.