September 26, 2022

রংপুরের মিঠাপুকুরে দিনদিন বাড়ছে স্বামী পরিত্যক্তা, গোপনে চলছে বিধবা নারীদের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক। অপ্রাপ্ত নাবালক তরুণ তরুণীসহ প্রেমের সম্পর্ককে ঘিরে বাড়ছে ধর্ষণ ও অপহরণ মামলা। এসব অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা ও মিমাংসা করা হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

উপজেলার ০২ নং রানীপুকুর ইউনিয়নের মমিনপুর আদিবাসী পাড়ায় দীর্ঘ ৮ বছরে বিভিন্ন যায়গায় ঘুরতে নিয়ে গিয়ে বিভিন্ন সময়ে প্রেমের সম্পর্কের জেরে বিয়ের প্রলোভনে তাওয়াতো বোনকে ধর্ষণ মামলায়, উজ্জ্বল ত্রির্কী (২৩) নামে একজনকে (২ মার্চ) বুধবার গ্রেফতার করে কোর্টের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় মিঠাপুকুর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ঐ এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ঐ মহিলার বয়স (৩৭) পূর্বের দুজন স্বামীকে ছেড়ে বাবার বাড়িতে বসবাস করতেন তিনি। অভিযুক্ত উজ্বল বয়সে প্রায় ১৪ বছরের ছোট।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ধর্ষনের মামলায় অভিযুক্ত উজ্বল ত্রির্কী মৃত- জিতেন ত্রির্কীর ছেলে। ধর্ষণের বাদীর ভাই অক্ষয় কুমারের সাথে অভিযুক্ত উজ্বলের ছোট বোন বাসনা ত্রির্কীর প্রায় ৬ বছর আগে বিয়ে হয়েছে। অক্ষয় আর বাসনা ত্রির্কীর বিয়েকে কেন্দ্র করে এখনো একটি অপহরন মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

উভয়ের বাড়ি একয়সাথে হওয়ায় ধর্ষণের শিকার ঐ স্বামী পরিত্যক্তা নারীর সঙ্গে আট বছর আগে উজ্জ্বল অর্থনৈতিক লেনদেন শুরু করেন। এতে উভয়ের মধ্যে ভালো সম্পর্ক তৈরি হয়। এক পর্যায়ে টাকা পয়সা লেনদেন সংক্রান্ত ঝামেলা তৈরী হলে দুই লক্ষ টাকা ফেরত চেয়ে একাধিক বার গ্রাম্য সার্লিশ অনুষ্ঠিত হয়।

জানায়ায় কয়েক-দফা সার্লিশে টাকা লেনদেন ছাড়া অন্য বিষয়ে কেউ কোন অভিযোগ তোলেনি। পাওনা টাকার কয়েকটি নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্প আছে। সর্বশেষ গত ১০ ফ্রেব্রুয়ারি পাওনা টাকা আদায়ে ঝগড়া ও তর্কে জড়ালে থানায় একটি অভিযোগ করেছিলেন ঐ নারী।

হঠাৎ এই টাকা সংক্রান্ত অভিযোগের দু-দিন পরই থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকেই গ্রেফতারের বিষয়ে আদিবাসীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক কয়েকজন আদিবাসী সম্প্রদায়ের লোকজন জানায়, কয়েকজন মুসলমান মাতাব্বর,টাউট উস্কানিমূলক ষড়যন্ত্র করে টাকা পয়সা খেয়ে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে প্রভাবিত করছেন। তারা দাবি করেন,ধর্ষণের মত ঘটনা ঘটলে আমাদের ধর্মীয় রীতিনীতি অনুযায়ী বিয়ে, অথবা আইনি ব্যাবস্থা নিতাম। তারা প্রশ্ন তুলেন,আট বছর আগে উজ্জ্বল নাবালক ছিলো। আর বয়সে বড় ঐ নারী কিভাবে নাবালক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। ঘটনায় উজ্বলের বোন বাসনা ত্রির্কী(২৮) তার ভাইয়ের নামে মামলা হওয়ায় স্বামী অক্ষয়ের পরিবার ছেড়ে বাবার বাড়িতে অবস্থান করতেছেন। সংসারও করবেন না বলে জানিয়েছেন বাসনা ত্রির্কী।

এ বিষয়ে মামলার বাদী ঐ নারীর দাবি, তার ভাইয়ের পূর্বের অপহরণ মামলা, স্টাম্পের টাকা না দেওয়ার জন্য, এবং উজ্জ্বল তার জীবন নষ্ট করায় মামলা দিয়েছেন। এ ঘটনায় তিনি সুকুমনি অর্থাৎ উজ্বলের মা এর উপর খোভ ঝাড়েন। প্রথমে টাকার অভিযোগ দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি টাকা পাইলে ধর্ষণ মামলা করতাম-না। কিন্তু টাকা না দেওয়ায় ঝামেলা বেড়েছে। মামলা করার কথা বলে মাতাব্বরেরা টাকা নিয়েছেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন এসব বলে লাভ কি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ইমরান জানান, পাওনা টাকা চেয়ে থানায় অভিযোগ করার পরপরই ছেলের বিয়ে অন্য জায়গায় হচ্ছে, এ ঘটনা জানার পরই ঐ নারী ধর্ষনের মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় ভিকটিমের মেডিকেল সম্পন্ন হয়েছে। মামলাটির তদন্ত চলছে।

পলাশ/বার্তাবাজার/এম.এম

Leave a Reply

Your email address will not be published.