October 5, 2022

পটুয়াখালীর বাউফলে কেন্দ্রীয় বিএনপির পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসাবে উপজেলা বিএনপি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে অল্প সংখ্যক নেতা-কর্মী নিয়ে দায়সারা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এমন কর্মসূচি নিয়ে তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার (৫ মার্চ) বেলা ৯টার দিকে হাসপাতাল রোডে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে ওই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক মো. মুনির হোসেনের নেতৃত্বে আনুমানিক ১শ নেতা-কর্মী নিয়ে দ্রব্য মূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি কিছু দুর এগিয়ে গেলে পুলিশের বাধার মুখে পড়লে পিছু হাটে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। পরে কার্যালয়ের মূলফটকে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. শাহজাদা মিয়ার সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন দলটি।

এসময় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতির প্রতিবাদ, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা মুনির হোসেন।

একই দাবিতে আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব ওলিউর রহমান, যুগ্ম আহ্বায়ক আনিসুর রহমান, আপেল মাহমুদ ফিরোজ, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক হুমায়ন কবির প্রমূখ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক বিএনপি নেতা বলেন, ‘বাউফল বিএনপি দুইভাগে বিভক্ত। বিএনপির সাবেক সাংসদ শহিদুল আলম তালুকদারসহ বিএনপির বৃহৎ একটি অংশকে কোনঠাসা করে রাখা হয়েছে। যারা নেতৃত্বে আছেন তারা আওয়ামী লীগের সাথে ব্যালেঞ্চ করে দলীয় কর্মসূচি পালন করা হয়। যার কারণে আন্দোলন সংগ্রাম বেগবান হচ্ছে না।

তবে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা মুনির হোসেন বলেন,‘ বাউফল বিএনপির সকল নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ রয়েছে। আমাদের কোন দলীয় কোন্দ্রল নেই। বিক্ষোভ মিছিলও সফল হয়ে বলে দাবি করেন তিনি।

অপরদিকে কেন্দ্রীয় যুবলীগের পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসাবে বিএনপির বিএনপি জামাতের জনবিচ্ছিন্ন কর্মকান্ড, দেশকে
অস্থিতিশীল করার পায়তারা রুখে দিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন উপজেলা যুবলীগ।

বেলা ১১টার দিকে দলীয় কার্যালয় জনতা ভবন থেকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. শাহজাহান সিরাজ ও সাধারন সম্পাদক এস.এম ফয়সাল আহম্মেদ মনির মোল্লার নেতৃত্বে ৫শতাধিক নেতাকর্মীর নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি পৌরশহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জনতা ভবনে এসে শেষ হয়।

উপজেলা যুবলীগ সাধারন সম্পাদক ও কালাইয়া ইউপি চেয়ারম্যান এস.এম ফয়সাল আহম্মেদ বলেন,‘ বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে যখন
এগিয়ে যাচ্ছে তখন জনবিচ্ছিন্ন দল বিএনপি দেশকে অস্থিতিশীল করার পায়তারা করছে। তাদের ষড়যন্ত্র রুখে দিতে যুবলীগ রাজপথে আছে। থাকবে।

এদিকে বিএনপি ও যুবলীগের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি থাকায় শহরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতানেন করা হয়।

হান্নান/বার্তাবাজার/এ.আর

Leave a Reply

Your email address will not be published.