‘জানোয়ার’ আমাকে দর্শকদের মাঝে পৌঁছে দিয়েছে: এলিনা শাম্মী

মডেল, উপস্থাপিকা ও অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিত এলিনা শাম্মী। শুধু তাই না নাটক লেখায়ও রয়েছে সমান বিচরণ। দেশ টিভিতে ‘দূরপাঠ’ নামে একটি লাইভ শো দিয়ে তার মিডিয়ায় যাত্রা। এরপর বিভিন্ন অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেছেন দেশের প্রায় প্রতিটি চ্যানেলেই। এখন নিয়মিত অভিনয় করেছেন নাটক ও চলচ্চিত্রে।

এ বছরের শুরুতে বাস্তব ঘটনা অবলম্বনে তৈরি ‘জানোয়ার’ ওয়েবফিল্ম মুক্তি পেয়েছে। বর্তমানে সিনেমা ও ওয়েবফিল্মে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। অভিনয়সহ বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে ইত্তেফাক অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেছেন এই অভিনেত্রী।
এলিনা শাম্মী: সরকারি অনুদানের ছবি ‘মুখোশ’-এর ডাবিং শেষ করলাম। ‘জলরং’ ছবিতে প্রথম লট কাজ শুরু করলাম। মুশফিকুর রহমান গুলজারের ‘টুঙ্গিপাড়ার দুঃসাহসী খোকা’র কাজও শুরু করেছি। রাসেল মিয়ার ‘ভাইয়া রে’ সিনেমার ডাবিং শেষ। বন্ধন বিশ্বাসের ‘ছায়াবৃক্ষ’-এর কাজ শেষ হয়েছে। সামিউর রহমানের ওয়েবফিল্ম জি ফাইভের ব্যানারে ‘কুহেলিকার’ শুট করছি। আলি জুলফিকার জাহেদির ‘কাগজ’ও সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেনের ‘হিমুর বসন্ত’ এক লট করে কাজ বাকি আছে। আই থিয়েটারে ব্যানারে ‘ভাইরাল’ ওয়েব-ফিল্মের কাজ করলাম। গত দুই মাস হলো এগুলোয় যুক্ত হয়ে কাজ করছি। আরও কিছু কাজের স্ক্রিপ্ট এসে জমা হয়েছে। দেখে-শুনে কাজের সিদ্ধান্ত নিচ্ছি।লিনা শাম্মী: ‘ভাইরাল’ ওয়েবফিল্মে অপুসহ অনেকেই কাজ করছেন। বিশেষ করে মেয়েরা। এটা আসলে খারাপ কিছু না। অনন্য মামুন ভাই কিন্তু ৬০-৭০ জনকে গ্রুমিং করিয়েছেন। সেখান থেকে ৪-৫ জনকে বাছাই করা হয়েছে। তাদের টিচার হিসেবে কাজ করছি। আমার কথা হলো, একটা ছেলে যখন টিকটকসহ অন্য সামাজিক মাধ্যমে কাজ করছে, তখন তারা ভালোকিছু তো করছেই না বরং নেগেটিভ একটা বিষয় ছড়াচ্ছে। সেই ছেলেটা যদি ভালোকিছু করতে চায়, তাহলে তার সঙ্গে কাজ করতে আমার সমস্যা কী? এখানে তো দোষের কিছু নেই।এলিনা শাম্মী: আমি তিন বছর একটি ইংলিশ মিডিয়ামে শিক্ষকতা করেছি। সেখানেও সফল ছিলাম। কারণ, ওখানে তিন জন করে সেরা শিক্ষকের সম্মাননা দেওয়া হতো। আমি প্রত্যেক বছরেই সেই সেরা তিন শিক্ষকের মধ্যে ছিলাম। সেটার জন্য আমি ব্রিটিশ কাউন্সিল থেকে কয়েকটি প্রশিক্ষণের সুযোগ পেয়েছি। ওই পেশা ছেড়ে দিয়ে অভিনয়ে এসেছি। মনোযোগ দিয়ে কাজ করছি। এছাড়া মিডিয়ায় যে দুর্নাম, সেই দুর্নাম দূরে ঠেলে কাজ করছি। এজন্য অনেকেই সুনাম করে। মিডিয়া জগতে আজকের দিনে এটাই আমার কাছে বড় পাওয়া। বাকি সফলতার বিষয়টি দর্শকরা বিচার করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.