সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২

দেশে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে চলছে ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রম। কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ার সকল মানুষকে প্রথম ডোজ ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে শুরু হয়েছে গণটিকা কার্যক্রম। শেষবারের মতো প্রথম ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। এই ক্যাম্পেইনে ভ্যাকসিন নিতে কোনো ধরনের নিবন্ধন করতে হবে না। এমনকি যারা নিবন্ধন করেও ভ্যাকসিন পাননি, তারাও ক্যাম্পেইনে নিতে পারছেন ভ্যাকসিন।

প্রতিদিনের মতো শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে পরিদর্শনে নেমেছেন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রুজলিন শহীদ চৌধুরী। এসময় উপজেলা ডাক বাংলোয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুজলিন শহীদ চৌধুরীর সাথে উপস্থিত ছিলেন পাকুন্দিয়া পৌর মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম আকন্দ, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস এম সাইফুল আলম, পৌর সচিব সৈয়দ শফিকুল ইসলাম, পৌর কমিশনার রাকিবুল আলম ছোটন, সিদ্দিক হোসেন রিপন প্রমুখ।

পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (টিএইচও) ডাঃ নূরে আলম খান বলেন, ৪০ টি কেন্দ্রে ১০ হাজার মানুষকে ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়া হবে।

রুজলিন শহীদ চৌধুরী জানান, সাধারণত টিকাদান ৩টা পর্যন্ত চললেও আজকে এই কর্মসূচি লক্ষ্যপূরণ না হওয়া পর্যন্ত চলবে। তিনি আরো বলেন, ক্যাম্পেইনে জন্মনিবন্ধন বা কোনো ধরনের কাগজপত্র লাগবে না ভ্যাকসিন নিতে। সেখানে মোবাইল নম্বর দিয়েই ভ্যাকসিন নেওয়া যাবে। মোবাইল নম্বরের মাধ্যমে তাদের তথ্য নথিভুক্ত করে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। তাদের একটি করে কার্ড দেওয়া হবে। সেটিই হবে তার ভ্যাকসিন নেওয়ার প্রমাণ। গণসচেতনতা কাজ করছেন রোবার স্কাউট ও জনপ্রতিনিধিরা। তাঁরা ঘরে ঘরে গিয়ে জনসাধারণকে ভ্যাকসিন নিতে উৎসাহিত করছেন।

হুমায়ুন/বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.