এলাকাভিত্তিক যেসব কেন্দ্রে টিকা নেবে শিক্ষার্থীরা

রাজধানীর স্কুলগুলোতে ১২-১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সোমবার (১ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হলেও এদিন শুধুমাত্র এই কেন্দ্রেই টিকা দেওয়া হয়।

আজ মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত রাজধানীর ৮টি কেন্দ্রে একযোগে টিকা কার্যক্রম শুরু হবে। টিকা গ্রহন করতে হলে শিক্ষার্থীদের টিকা কার্ডের দুই কপি সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রে যেতে হবে।

রাজধানীর যেসব স্কুলে টিকা দেওয়া হবে সেগুলো হলো হার্ডকো ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, সাউথপয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ, চিটাগং গ্রামার স্কুল, মতিঝিলের আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মিরপুর কমার্স স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং স্কলাস্টিকা স্কুল, কাকলী হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সাউথ ব্রিজ স্কুল।

জানা যায়, বাড্ডা এলাকার হার্ডকো ইন্টারন্যাশনাল স্কুল কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে। আর দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানের ৬৯৬ জন এবং স্যার জন উইলসন স্কুলের ৩০৫ জন শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

মালিবাগ এলাকার সাউথপয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে সাউথ পয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে সকাল ৯টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত। আর দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত সাউথ পয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৯৭৪ জন এবং খালেদ হায়দার মেমোরিয়াল জুনিয়র গার্লস স্কুলের ১৯ জন শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

বনানীর চিটাগং গ্রামার স্কুল কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিটাগং গ্রামার স্কুলের ১৭৮ জন, বটমলি হোম গার্লস হাইস্কুলের ৪৯৯ জন এবং তেজগাঁও গভর্নমেন্ট হাইস্কুলের ৩৪০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। এই কেন্দ্রে দুপুর ১২টা থেকে হলিক্রস গার্লস হাইস্কুলের এক হাজার ১৩৪ জন শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

মতিঝিলের আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ওই প্রতিষ্ঠানের ৫১৬ জন, মতিঝিল গভর্নমেন্ট বয়েজ হাইস্কুলের ৫০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। আর দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত মতিঝিল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

মিরপুরের ঢাকা কমার্স কলেজ কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত ওই কলেজেরই ১০ জন, আহসানিয়া মিশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৪২৭ জন এবং ঢাকা শিক্ষা বোর্ড ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৫৯৮ জনকে টিকা দেওয়া হবে। আর দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত বিসিআইসি স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক হাজার ৩১০ জন শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে। অন্যদিকে মিরপুরের (১৩ নম্বর) স্কলাস্টিকা স্কুল কেন্দ্রে ওই স্কুলের এক হাজার ২৩২ জনকে এবং দুপর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত আদমজি ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলের এক হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

ধানমন্ডির কাকলী হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ওই প্রতিষ্ঠানের ২৮৫ জন, বিসিএসআইআর স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৭০২ জন এবং ইউরোপিয়ান স্ট্যান্ডার্ড স্কুলের ১৭১ জনকে টিকা দেওয়া হবে। আর দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

উত্তরার সাউথ ব্রিজ স্কুল কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ওই স্কুলেরই ৫৬৬ জন, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের ৬০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। আর দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত মাইলস্টোন কলেজের এক হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

রাজধানীর আটটি কেন্দ্রে প্রতিদিন ৪০ হাজার শিশুকে করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, প্রাথমিকভবে দেওয়া টিকায় ভালো ফল পাওয়া গেছে। রাজধানীর ৮টি স্কুলে টিকা কার্যক্রম শুরু করেছি আমরা। প্রতিদিন প্রতি কেন্দ্রে ৫ হাজার করে ৮টি কেন্দ্রে ৪০ হাজার টিকা দেওয়া হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্র জানায়, শিক্ষার্থীরা ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে এই টিকার ৭০ লাখ ডোজ মজুদ রয়েছে। নভেম্বর মাসে আরও ৩৫ লাখ ডোজ আসার কথা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.