October 2, 2022

ইউক্রেনের আকাশে ‘নো-ফ্লাই জোন’ জারি করতে ন্যাটো ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। কিন্তু আমেরিকা ও ন্যাটো এ আহ্বানে কোনো ইতিবাচক সাড়া দেয়নি। এ ব্যাপারে আমেরিকা এবং ন্যাটো জেলেনস্কির আবেদন নাকোচ করে দেন। এরই মধ্যে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, ইউক্রেনের আকাশ সীমায় কোনো দেশ বিমান চলাচল নিষিদ্ধ করলে তা হবে এই যুদ্ধে যোগদানের সামিল।

গতকাল শনিবার (৫ মার্চ) রাশিয়ার বিমান সংস্থা এরোফ্লটের কর্মীদের সাথে এক বৈঠকে ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, তৃতীয় কোনো পক্ষ কর্তৃক ইউক্রেনের আকাশে ‘নো-ফ্লাই জোন’ ঘোষণা করাকে সশস্ত্র সংঘাতে অংশগ্রহণ হিসেবে বিবেচনা করবে রাশিয়া। এটি শুধু ইউরোপ নয়, গোটা বিশ্বের জন্য বড় বিপর্যয় ডেকে আনবে।

বলা হয়েছে, সামরিক দিক থেকে এই নো-ফ্লাই জোন হচ্ছে এমন এলাকা যেখানে হামলা চালানো বা পর্যবেক্ষণের জন্য বিমান চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়। তবে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হয় সামরিক পন্থায়- এই আদেশ লঙ্ঘনকারী বিমানকে গুলি করে ভূপাতিত করতে হয়।

ইউক্রেনের আকাশ সীমায় বিমান চলাচল নিষিদ্ধ করতে ন্যাটোর আপত্তির চরম সমালোচনা করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি এর জন্য ন্যাটোর ‘দুর্বলতা’ এবং ‘অনৈক্য’কে দায়ী করেছেন। ন্যাটো বলছে, এটা করা হলে আরও বেশি সংখ্যক দেশ যুদ্ধে জড়িয়ে পড়বে।

বার্তাবাজার/এম আই

Leave a Reply

Your email address will not be published.